মুখ দেখা দেখি বন্ধ ছিল দুই বোনের! লতা আশার মাঝে বিবাদের মূল কারণ জানলে অবাক হবেন আপনিও

লতা মঙ্গেশকর (Lata Mangeshkar) আর আশা ভোঁসলে (Asha Bhosle) দুটো নামই সংগীতের জগতে উজ্জ্বল তারকার মতন জ্বলজ্বল করবে চিরকাল। শ্রোতাদের মনে পাকাপাকি ভাবে দাগ কেটে গিয়েছে তাদের কন্ঠ। তাঁদের ছাড়া এই সংগীতের দুনিয়া ছিল অসম্পূর্ণ। তবে, দর্শকদের মনে সর্বদাই একটি প্রশ্ন ঘুরপাক খায়। এই দুই সঙ্গীত শিল্পীর মধ্যে থাকা বিতর্ক সম্পর্কে খোলাখুলি জানতে সদা আগ্রহী তাদের শ্রোতারা।

এই দুই গায়িকার জীবন মোটেই মসৃণ ছিল না। মাত্র একদিনের জন‌্য স্কুলে গিয়েছিলেন লতা মঙ্গেশকর। প্রথম দিনই সঙ্গী হয়েছিল বোন আশা। বোনকে স্কুলে আনা পছন্দ করতেন না স্কুলের শিক্ষক। তাই তাদের কপালে জোটে মাস্টারমশাইদের বকুনি। তারপর থেকে আর স্কুলে যাননি সুরসম্রাজ্ঞী। এরপরেই গায়িকার জীবনে নেমে আসে এক চরম দুঃসময়। এই সময়টা প্রতিটি শিশুর জীবনেই ভয়ংকর প্রভাব ফেলতে পারে।

১৯৪২ সালে প্রয়াত হন লতা মঙ্গেশকরের বাবা দীননাথ মঙ্গেশকর। তিনি ছিলেন বাড়ির সব থেকে বড় মেয়ে আর বাড়ির বড় মেয়ে হিসাবে পরিবারের দায়িত্ব লতার উপর এসে পড়ে। তখন তার বয়স মাত্র ১২ বছর। উপার্জনের আশাতেই ১৯৪২-১৯৪৮, আটটি সিনেমায় অভিনয় করেন লতা। মারাঠি সিনেমা ‘কিটি হাসাল’-এ প্রথম প্লে ব‌্যাক করেছিলেন লতা। লতা আশা দুই বোন ছিল দুজনার ছায়া সঙ্গী। কেউ কাউকে ছাড়া এক পাও হাঁটতো না। এত ভালো সম্পর্ক থাকার পরেও হঠাৎ করে কি এমন হলো যাতে দুজনের সম্পর্কে এমন ফাটল ধরলো?

লতা মঙ্গেশকর আর আশা ভোঁসলে এই দুই নাম উচ্চারণের সঙ্গে সঙ্গেই আরো একটি বিষয় সর্বসমক্ষে উঠে আসে। সেটা হল উভয়ের প্রতিদ্বন্দ্বিতার প্রসঙ্গ। কিন্তু তাদের মধ্যে আদৌ কি কোন প্রতিযোগিতা ছিল? এক সাক্ষাৎকারে লতা মঙ্গেশকর জানিয়েছিলেন, তাদের দুজনের গানের ধরন একেবারেই আলাদা তাই তাদের মধ্যে প্রতিযোগিতার কোনো প্রশ্ন ওঠেনা। তারা দুজনা দুজনার মতন করে সুন্দর। তাহলে কি এমন ঘটেছিল যার জন্য নিজের বোনের প্রতি এমন বিরূপ ছিলেন তিনি?

আরো পড়ুন:পর্ণার আসন্ন সন্তানের ক্ষতি করতে ফাঁদ পাতলো অয়ন মৌমিতা! পর্ণার উপর চাপ সৃষ্টি করল কৃষ্ণা

মঙ্গেশকর নিজেই একবার মুম্বই সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, আশা ভোঁসলে মাত্র ১৬ বছর বয়সে পালিয়ে গিয়ে তার চেয়ে ১৫ বছরের বড় গণপতরাও ভোঁসলের সাথে বিবাহ করেন। যার কারণে আশার সঙ্গে তাঁর ভুল বোঝাবুঝি শুরু হয়। চল্লিশের দশকের শেষ দিকে দুই বোন একসঙ্গে গানের জগতে এসেছিলেন। কিন্তু পঞ্চাশ ও ষাটের দশকে লতা তার বোনের তুলনায় অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠলেন। শোনা যায়, গণপতরাও মনে করতেন, লতার কারণে কাজ পান না আশা। লতার সঙ্গে যোগাযোগও বন্ধ করে দেন। যদিও পরবর্তীতে নিজের বাড়িতেই ফিরে আসতে হয়েছিল আশাকে।

Back to top button