জ্যাকির খোঁজ পেতে চরম বিপদে ঝা’প মা’র’লো শ্যামলী! কাজ শেষ হওয়ার আগেই ধরা পড়ে গেল সে!

Kon Gopone Mon Bhesechhe Today Episode: বুদ্ধি থাকলে অনেক বড় বড় বিপদের সম্মুখীন ঠান্ডা মাথায় করা যায়। জি বাংলার (Zee Bangla) কোন গোপনে মন ভেসেছে (Kon Gopone Mon Bhesechhe) ধারাবাহিকটির নায়িকা শ্যামলী ঠিক এমন ভাবেই বুদ্ধি খাটিয়ে নিজের শ্বশুরবাড়ির মান সম্মান রক্ষা করল। যত দিন যাচ্ছে এই নবাগত ধারাবাহিক আরও বেশি জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। ধারাবাহিকের টিআরপিও নেহাত মন্দ নয়। এই ধারাবাহিকে নায়িকাকে দুটি চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে একটি হলো শ্যামলী অন্যটি হলো তিস্তা।

ধারাবাহিকের বর্তমান গল্প অনুযায়ী, শ্যামলীর জন্য আজ তার ননদ প্রিয়াঞ্জলি অনেক বড় বিপদের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। প্রিয়ার এক সহপাঠী জ্যাকি বারবার প্রিয়াকে উত্যক্ত করছিল। সেই ছেলেটির কথা না শোনায় তার আপত্তি সূচক ভিডিও বানিয়ে সেটা ভাইরাল করে দেওয়ার ভয় দেখাচ্ছিল। প্রিয়াকে নানা রকম ভাবে ব্যবহার করার চেষ্টা করছিল। কিন্তু শ্যামলী বুদ্ধি করে এই সমস্ত কিছু থেকে প্রিয়াকে উদ্ধার করেছে। যদিও উচ্চ পদস্থ পুলিশ কর্মীর ছেলে হওয়ায় পার পেয়ে যায় জ্যাকি। নিজের ছেলেকে অন্য এক জায়গায় লুকিয়ে রাখে পুলিশ অফিসার।

কোন গোপনে মন ভেসেছে আজকের পর্ব ১৩ এপ্রিল (Kon Gopone Mon Bhesechhe 13 April)

ধারাবাহিকের আজকের পর্বে দেখা যায়, অনিকেত শ্যামলীকে ডেকে পাঠায় কারণ তার একটা উপকার খুব দরকার হয়ে পড়েছে তাদের। সে শ্যামলীকে বলে, “আপনাকে রান্নার লোক সেজে ওই বাড়িতে ঢুকতে হবে। আর জানতে হবে জ্যাকি কোথায় রয়েছে। কাজ শেষ হয়ে গেলেই ওখান থেকে বেরিয়ে আসবেন। আপনি কি পারবেন এটা করতে? কারণ এটা ছাড়া আমাদের হাতে ওর আসল ঠিকানা বের করার কোন উপায় নেই।” শ্যামলী বলে সে প্রিয়া দিদির জন্য সব কিছু করতে পারে। শ্যামলী রাজি থাকায় নিজেদের পরিকল্পনা চালিয়ে যায় অনিকেত।

কিন্তু সমস্যার বিষয় হচ্ছে শ্যামলীকে ওরা চেনে। তাই শ্যামলী যদি সেখানে যায় তাহলে সবাই ওকে চিনে ফেলবে তখন মুশকিল হবে। ঠাম্মি বলে তার কাছে এই বিপদ এড়ানোর একটা উপায় আছে। শ্যামলী ছদ্মবেশ নিয়ে যাবে অনিকেত বলে ওঠে ও কি পারবে? শ্যামলী মনে মনে ভাবে এতদিন তো ছদ্মবেশ নিয়েই কতকাণ্ড করে ফেললো, কেউ কি তাকে ধরতে পেরেছে? শ্যামলী জোর গলায় বলে সে সব পারবে। এরপর তাকে রান্নার লোক সাজিয়ে ওই বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় অনিকেত। শ্যামলীর কানে ব্লুটুথ লাগিয়ে দেয় যাতে সেটার দ্বারা অনিকেতের সাথে যোগাযোগ বজায় রাখতে পারে সে।

আরো পড়ুন: টিআরপি কম থাকার জন্য ফের শেষ হতে চলেছে স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক! আসছে নতুন মেগা

সেখানে গিয়ে জ্যাকির বাবার জেরার মুখোমুখি হয় শ্যামলী। কিন্তু সবটাই স্বাভাবিকভাবে সামলে নেয় সে। কিন্তু ওই বাড়ির দুই কাজের লোকের সাথে তার তেমন বনিবনা হয় না। ওদের দুজনের মধ্যে একজন চেয়েছিল এই বাড়ি রান্নার কাজটা পাকাপাকি ভাবে নিজের করে নিতে, তাতে কিছু মাইনে বাড়ত। সেই জায়গায় ব্যাঘাত দিয়েছে শ্যামলী তাই তাকে তাড়াতে ব্যস্ত হয়ে পড়ে সেই কাজের লোক। শ্যামলীর ওপর সে নজর রাখতে থাকে আর শ্যামলীর আচার ব্যবহার দেখে সন্দেহ হওয়ায় সোজা জ্যাকির বাবাকে গিয়ে সবটা জানিয়ে দেয় সে। এটা শুনে জ্যাকির বাবা বুঝে যায় কোথাও তো একটা সমস্যা রয়েছে। এদিকে জ্যাকির মা শ্যামলীকে আলু পোস্ত করতে বলে। আর সেই সূত্রে শ্যামলী জানতে পারে জ্যাকি নাকি আলু পোস্ত খেতে খুব ভালোবাসে আর তার জন্যই নাকি আলু পোস্ত বানানো হচ্ছে। এটাই তাকে ধরার মোক্ষম সুযোগ বলে মনে করে সে। কিন্তু এর পাশাপাশি শ্যামলী এটাও বুঝতে পারে যে তার উপর নজর রাখা হচ্ছে।

Back to top button