নীলের ব্যবহারে একটু একটু করে নরম হচ্ছে অনিন্দ্য, মেঘকে নীলের হাতে তুলে দেবে সে!

পরের জন্ম নয়, এই জন্মের কর্মের ফল মানুষকে এই জন্মেই ভোগ করতে হয়। অন্যায় যতই নিখুঁত হোক না কেন, ধরা সে ঠিকই পড়বে। আর ঠিক তেমন করেই ধরা পরল জি বাংলার (Zee Bangla) চ্যানেলের ইচ্ছে পুতুল (Ichhe Putul) ধারাবাহিকের দুই ক্রিমিনাল ময়ূরী আর রূপ। জমে উঠল ধারাবাহিকের বর্তমান পর্ব গুলি।

বর্তমান গল্প অনুযায়ী, প্রেস কনফারেন্স ডেকে ময়ূরী আর রূপের মুখোশ টেনের ছিড়ে দিয়েছে গিনি। মেঘ তাকে যেভাবে সাহায্য করেছিল সেই সাহায্যের ঋণ শোধ করেছে সে। ন্যায্য বিচার পেয়েছে মেঘ। কিন্তু এত কিছুর পরেও এতটুকুনিও মাথা নিচু করেনি ময়ূরী।

এরপরেও গলা উঁচু করে কথা বলছে সে। কিন্তু আগের থেকে এখনকার পরিস্থিতি অনেকটা পাল্টেছে। যে অনিন্দ্য কখনো কারো সাথে গলা তুলে কথা বলে না সে ময়ূরীকে যথেষ্ট কথা শুনিয়েছে। শুধু তাই নয়, ময়ূরীর সঙ্গ ত্যাগ করেছে মধুমিতা। এখন ময়ূরী একেবারে একা। নিজের চরম সর্বনাশ তো ঘটেই গিয়েছে এইবার শুধু সংশোধনাগারে যাওয়ার প্রহর গুনছে।

এই দিনের পর্বে, সবার সামনে মেঘের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছিল নীল। শুধু তাই নয়, এই সম্পূর্ণ বিষয়টা ঘটাতে সাহায্য করেছিল সে। মেঘকে কলঙ্ক মুক্ত করতে এবং সমাজের কাছে পুনরায় তার ভাবমূর্তি ফিরিয়ে দিতে নিজের মন প্রাণ দিয়ে চেষ্টা করেছে। এর প্রতিটি বিষয়ে একটু হলেও অনিন্দ্যকে নীলের প্রতি নরম করে তুলেছে।

আরও পড়ুন: উচিত কথা বলে সবার মুখ বন্ধ করে দিল ঠাম্মি, পর্ণাকে ফের অবিশ্বাস করলো সৃজন! আবার নতুন সমস্যার সম্মুখীন পর্ণা!

ধারাবাহিকের আগামী পর্বে দেখা যাবে, নীলের ঠাম্মি নীলকে বলছে, “তুই পারবি না মেয়েটাকে আবার এই বাড়িতে ফিরিয়ে আনতে?” অন্যদিকে মেঘের বাবা মেঘকে বলে, “যে তোকে ভালবাসে সে তোকে মাথায় করে রাখবে।” সব শেষ হয়ে যাওয়ার আগে, মেঘের প্রতি নীলের ভালোবাসা কি বুঝবে অনিন্দ্য?

Back to top button