মারকাটারি পর্ব ফুলকির সেটে, ‘আমাকে মুখে মেরেছে, আমিও ওদের পাল্টা মেরেছি’, বললেন দিব্যাণী

আসল নামের থেকে বেশি দর্শকরা তাঁকে চেনে ফুলকি (Phulki) নামে। তবে অ অনেকে জানেন না তাদের ছোট্ট, মিষ্টি ফুলকি একজন ব্ল্যাকবেল্টার। শুধু ফুলকি নয়! অভিনেত্রী দিব্যাণী মণ্ডলের (Divyani Mondal) বাবাও একজন ব্ল্যাক বেল্টার। দিব্যাণীর বাবা ক্যারাটে শিক্ষাগুরু দেবাশিস মণ্ডল।

বাংলা ধারাবাহিকপ্রেমী মহলে বহুল জনপ্রিয় জি বাংলার ‘ফুলকি’। এই ধারাবাহিকে বক্সারের ভূমিকায় অভিনয় করেন তিনি। বক্সিং করেই তিনি কুপোকাত করেন দুষ্টু লোককে। ক্যারাটেতে ব্ল্যাকবেল্টার হওয়ার সুবাদে ডামি ছাড়া অভিনয় করছেন দিব্যাণী। মারপিটের দৃশ্যে বিপরীতে থাকা অভিনেতাকে নিজেই ঘায়েল করতে পারেন তিনি। তবে খানিক মার খেতেও হয় অভিনেত্রীকে।

বক্সিং করতে গিয়ে প্রশিক্ষিত বক্সারের থেকে ঘুষি খেয়েছেন। তেমনটাই জানিয়েছেন সাম্প্রতিক ইন্টারভিউতে। টিভির পর্দায় সাধারণত অভিনেতাকেই স্টান্ট করতে দেখা যায়। তবে ফুলকি যেহেতু নারীকেন্দ্রিক ধারাবাহিক তাই দিব্যাণী গল্পের হিরো। তাঁর কথায়,”আমি ডামি ছাড়াই অভিনয় করি। আর তাতে আমার সহ অভিনেতারা বলেন, তুই ডামিদের থেকেও ভাল মারপিট করিস। এমনও হয়েছে যে আমাকে বক্সিংয়ে সারাদিনে পাঁচটা ফাইট সিন করতে হয়েছে। একটা ফাইট দেড় ঘণ্টা ধরে চলে।”

পর্দার ফুলকির আরও সংযোজন, “আমার বিপরীতে থাকেন পেশাদার বক্সার। যদিও অভিনয়ের ক্ষেত্রে কত সংযত হয়ে অভিনয় করতে হয়, তাঁরা জানেন। তবু শ্যুটে আমায় মুখে মার খেতে হয়েছে। পেশাদার বক্সাররা যেমন আমাকে মেরেছেন কোনও না কোনও শ্যুটিংয়ে।”

আরো পড়ুন: প্রাক্তন স্ত্রীর বিয়ে হতেই এবার নিজেও বিয়ের পিঁড়িতে অনুপম, পাত্রী কে? নিজের মুখেই জানালেন গায়ক

গত বছর টিআরপি টপার ধারাবাহিক ‘মিঠাই’ শেষ করে পথ চলা শুরু হয়েছিল ফুলকির। মাত্র ১৮ বছর বয়স থেকে অভিনয় শুরু করেছিলেন। নারীকেন্দ্রিক এই ধারাবাহিকের জনপ্রিয়তা শুরু থেকেই ছিল আকাশছোঁয়া। সাম্প্রতিক কালে টিআরপি টপার জগদ্ধাত্রীর সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি টক্কর দেয় ফুলকি। অল্প রেটিং-এর ব্যবধানে টপার স্থান হাত ছাড়া হলেও, বলা বাহুল্য বেশ জনপ্রিয় এই ধারাবাহিক।

Back to top button