ঘুরে গেল ভাগ্যের চাকা, চাকরিটা পেয়ে গেল রাই! জানতে পেরে অবাক হল সৌর্য!

বর্তমানে জি বাংলার (Zee Bangla) পর্দায় বহাল তবিয়তে সম্প্রচারিত হচ্ছে মিঠিঝোড়া (MithiJhora)। এই ধারাবাহিকটির বয়স খুব বেশিদিন নয়। কিছুদিনের মধ্যেই দর্শকদের মনে জায়গা করে নিয়েছে ধারাবাহিকের নায়িকা রাই। তার পরিশ্রম তার চিন্তাভাবনা এবং বিচার বুদ্ধি সবটাই মন জিতে নিয়েছে ভক্তদের। এখন অবধি টিআরপিতে চমক দেখাতে না পারলেও ভক্তদের দাবি খুব তাড়াতাড়ি প্রথম পাছে প্রবেশ করবে এই মেগা।

বাবা মারা যাওয়ার পর, পরিবারের ছেলে হয়ে ওঠেছে রাই। বর্তমান সমাজ বিশ্বাস করে, বাড়িতে একটা ছেলে থাকলে সেই নাকি বাবা মাকে দেখতে পারবে। মেয়েদের তো বিয়ে হয়ে যাবে। এই পুরনো পন্থী চিন্তাভাবনাকে চরম ভুল প্রমাণিত করে নিজের পরিবারের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছে ধারাবাহিকের নায়িকা। নিজের মা-বোনের দুঃখ ঘোচাতে নিজেই পরিবারের সম্বল হয়ে উঠেছে সে।

বর্তমানে নিজের বোনের শ্বশুরবাড়িতে রান্না করে এবং বোনের স্বামীর বাবার দেখাশোনা করে দিন কাটছে রাইয়ের। রাই এটা করতে চায়না। এই বাড়িতে নিজের বোনের কাছে এবং নিজের বোনের স্বামীর কাছে সে যেভাবে প্রত্যেকদিন প্রতিনিয়ত অপমানিত হচ্ছে সেখান থেকে মুক্তি পেতে চায় সে। এই মুক্তির পথ খুলে দিল রাইয়ের চাকরি। সম্প্রতি একটি কোম্পানিতে ইন্টারভিউ দিয়েছিল রাই। সেখানে তাকে অপমান করে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল কারণ সে ইংরেজি জানে না। কিন্তু সেই কোম্পানি থেকেই অবাক করা খবর পেল নায়িকা।

রাই যার কাছে ইন্টারভিউ দিয়েছিল তার অ্যাসিস্টেন্ট ফোন করে রাইকে। সে বলে, রাইয়ের চাকরিটা হয়ে গিয়েছে। সে কত টাকা মাইনে চায় এই নিয়ে যেন খুব তাড়াতাড়ি অফিসে এসে যোগাযোগ করে। প্রথমে এ বিষয়টাকে নিছক মজা ভেবে উড়িয়ে দিয়েছিল রাই। কিন্তু তাকে বুঝিয়ে বলা হয়, ওই অফিসের স্যারের মনে হয়েছে এই পদের জন্য রাই একমাত্র যোগ্য। প্রথমে সে ঠিক করে চাকরিটা করবে না কারণ প্রথম দিন তাকে অনেক অপমান সহ্য করতে হয়েছিল। কিন্তু পরে ভেবে দেখে, এই চাকরিটা করলে তার বাড়ির অবস্থা সচ্ছল হবে। আর তাকে তার বোনের শ্বশুরবাড়িতে পড়ে থাকতে হবে না।

আরও পড়ুনঃ বিচ্ছেদ নিয়ে এই প্রথম মুখ খুললেন অভিনেত্রী সৌমিলি বিশ্বাস! ‘সুজয় প্রসাদই দায়ী’ অকপট অভিনেত্রী

এই চাকরি পাওয়ার কথাটা রাই প্রথম জানায় নিলু আর তার স্বামীকে। কারণ তারাই তাকে নিয়ে ব্যঙ্গ করেছিল। এই সুখবরটা শুনে অবাক হয়ে যায় সৌর্য। সে কিছুতেই বিশ্বাস করতে পারে না, যে মেয়েটা একেবারে হেরে গিয়েছে, অপমানিত হয়ে একেবারে মাটির সাথে মিশে গিয়েছে সে কিভাবে এত ভালো চাকরি পেল। যদি সত্যিই ধারাবাহিকের আগামী পর্বগুলোতে এমনই কিছু ঘটে তাহলে কেমন লাগবে ভক্তদের?

Back to top button