রাই -এর প্রত্যাখ্যান পেয়ে চরম অনর্থ ঘটালো সৌর্য! স্রোতের জীবনে সর্বনাশ নামিয়ে আনলো সার্থক!

এই মুহূর্তে বাংলা ধারাবাহিকের চ্যানেল গুলির মধ্যে ধারাবাহিক সম্প্রচারের দিক থেকে বেশ অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে জি বাংলা (Zee Bangla)। এই চ্যানেলের বেশিরভাগ ধারাবাহিক বেশ উন্নত মানের। সম্প্রতি এই চ্যানেলে সম্প্রচারিত হচ্ছে মিঠিঝোড়া (Mithi Jhora) ধারাবাহিকটি। আর পাঁচটা ধারাবাহিকের তুলনায় এই মেগার গল্প একেবারেই আলাদা। এই ধারাবাহিকে প্রধান আকর্ষণ হচ্ছে নায়িকা রাই। তার স্বার্থ ত্যাগের গল্প মন ছুয়ে গিয়েছে দর্শকমহলের।

ধারাবাহিকের বর্তমান প্লট অনুযায়ী, নায়িকা রাইয়ের বোন নিলু একেবারে সহ্য করতে পারছিলো না তার দিদিকে। তাই সে তার দিদি রাইকে বাড়ি থেকে অপমান করে বের করে দেয়, আর নিজের শ্বশুরমশাই এর দায়িত্ব নিজেই নেয়। কিন্তু সেই দায়িত্ব সেই মোটেই ঠিক ভাবে পালন করতে পারেনি সে। তার অন্যমনস্কতার জন্য তার শ্বশুর মশাই অবিনাশ মাটিতে পড়ে যায় আর বেশ গুরুতর আঘাত প্রাপ্ত হয়। এই ঘটনায় নিলুর উপর ভীষণ রেগে যায় তার স্বামী অর্থাৎ রাইয়ের প্রাক্তন প্রেমিক সৌর্য।

ধারাবাহিকের আজকের পর্বে দেখা যায়, সৌর্য সোজা চলে আসে রাইয়ের কাছে। এসে রাইকে বলে, তাকে এখনই ওই বাড়িতে ফিরে যেতে হবে কারণ তার বাবার অবস্থা খারাপ। নিলুর দোষে তার বাবা গুরুতর আঘাত প্রাপ্ত হয়েছে এখন রাই ছাড়া তার বাবাকে সুস্থ করে তোলা সম্ভব নয়। কিন্তু এটা কিছুতেই মেনে নিতে পারেনা রাই। রাই এর বৌদি সৌর্যকে বলে রাই কোথাও যাবে না।

রাই সৌর্যকে বলে, “আমি ওই বাড়িতে আর অপমানিত হতে যাবো না। আমার যখন এতই প্রয়োজন তাহলে আমাকে ন্যায্য সম্মান দিতে হতো। যেটা তোমরা কেউ দিতে পারোনি। আর আমার বোন মনে করে আমি তার স্বামীকে কেড়ে নেব তাই ওর ভয় আমি বাড়াতে পারবো না। তোমারা যদি ওনাকে সুস্থ দেখতে চাও তাহলে অন্য নার্স দেখে নাও। কিন্তু আমি আর কোনো মোটেই ফিরে যাবো না।” এরপর এই বিষয়টাকে কেন্দ্র করে রাইয়ের সাথে তার মায়ের বিবাদ সৃষ্টি হয়। সৌর্য কি করবে কিছু বুঝতে পারে না।

আরও পড়ুন: মেহেন্দিকে নিজের চেয়ার ছেড়ে দিল কৌশিকী! অদ্ভুত ভাবে ফিরে এলো বৈদেহি মুখার্জী!

এদিকে স্রোত এর ডিপার্টমেন্টের সহপাঠীরা স্রোতকে ফাঁসানোর জন্য মিথ্যে মিথ্যে কিছু কথা তাকে বলে। তারা বলে, সার্থক স্যার নাকি স্রোতকে এবং আরো একটি ছেলেকে ভলেন্টিয়ার করতে চায়। আর এই জন্য নাকি স্রোতকে দেখা করতে বলেছে স্যার। কথাটা শুনে স্রোত স্যারের কাছে গিয়ে এই সমস্ত কিছু খুলে বললে সার্থক স্রোতকে রীতিমতো অপমান করে। স্রোতের বন্ধুরা বলে এতে ওর কোন দোষ নেই, ক্লাসের কিছু ছেলে মেয়ে স্রোতকে ভুল বুঝিয়েছে। কিন্তু এসব কিছুই শুনতে চায় না সার্থক। তখন স্রোত স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, যদি সার্থক তার সঙ্গে আর একবার খারাপ ব্যবহার করে তাহলে কিন্তু খুব খারাপ হয়ে যাবে। স্রোতের এমন হুমকি শুনে প্রচন্ড রেগে যায় সার্থক।

Back to top button