ফুলকির প্ল্যানে সকলের সামনে মাটিতে মুখ থুবড়ে পরল রুদ্র! অসভ্যতার জন্য শাস্তি হল তার!

এই মুহূর্তে জি বাংলার (Zee Bangla) পর্দায় সম্প্রচারিত হচ্ছে, একাধিক জনপ্রিয় ধারাবাহিক। এগুলির মধ্যেই অন্যতম একটি হলো ‘ফুলকি’ (Phulki)। দর্শকদের ভালোবাসায় শুরু থেকেই শীর্ষে অবস্থান করছে এই মেগা। চলতি সপ্তাহেও টিআরপি তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে এই ধারাবাহিকের নাম। একজন প্রথম থেকেই দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছে ধারাবাহিকের নায়িকা ফুলকি।

শুরু থেকেই নিজেকে বেশ শক্তিশালী হিসেবে গড়ে তুলেছে ফুলকি। তার বুদ্ধি এবং লড়াই করার ক্ষমতা অপরিসীম। হঠাৎ করেই তার সাথে বিয়ে হয়ে যায় ধারাবাহিকের নায়ক রোহিতের। শুরুতে নায়কের সাথে যেমন ভালো সম্পর্ক গড়ে ওঠেনি ফুলকির। তবুও সে চেষ্টা করে গিয়েছে সবাইকে আপন করে নেওয়ার। মাঝপথে শালিনী অর্থাৎ রোহিতের প্রাক্তন স্ত্রী চলে আসায় ফুলকির পথ আরও বেশি অমসৃণ হয়ে গিয়েছে।

একটার পর একটা কু বুদ্ধি বের করে রোহিত আর ফুলকিকে বিপদে ফেলার চেষ্টা করে গিয়েছে শালিনী আর রুদ্র। আর সেই প্রত্যেকটা বিপদ থেকে নিজেকে এবং রোহিতকে রক্ষা করেছে ফুলকি। তবুও বারবার ফুলকিকে ভুল বুঝেছে রোহিত। তবে বর্তমানে সেই ভুল বোঝাবুঝির পালা অনেকটাই কমেছে। একটু একটু করে ফুলকির প্রতি দুর্বল হয়ে পড়েছে রোহিত। নিজের অজান্তেই ফুলকির জন্য ভালোবাসা জন্মেছে রোহিতের মনে।

বর্তমানে এই ধারাবাহিকের গল্প অনুযায়ী, গোটা পরিবার এখন ব্যস্ত পিকনিক করতে। পরিবারের প্রত্যেকটি মানুষ এই রোজকার জীবন থেকে মুক্তি পেতে পিকনিকে যায়। সেখানে গিয়ে সবাই মিলে হই হুল্লোড় করতে থাকে। এর মাঝেই আবার ফুলকি তমালকে কথা দিয়ে বসে, চিংড়ি দিদি, নিজের থেকে এসে তমালকে জড়িয়ে ধরবে। সব মিলিয়ে বেশ ভালোই কাটছে তাদের জীবন। এতসবের পরেও শালিনী চেষ্টা করে যাচ্ছে রোহিতকে নিজের দলে টানার।

আরো পড়ুন: দুঃসংবাদ দিলেন রান্নাঘরের সুদীপা! ছেলে আদিদেবকে আচমকা নিয়ে ছুটতে হল হাসপাতালে!

ধারাবাহিকের আগামী পর্বে দেখা যাবে, সবাই মিলে মিউজিক্যাল চেয়ার খেলতে মত্ত। রোহিত তমাল আর পিয়াল মিলে দূরে দাঁড়িয়ে হাততালি দিচ্ছে আর একটা চেয়ারকে কেন্দ্র করে ঘুরছে রুদ্র ফুলকি আর রুদ্রের বউ। ফুল কি মনে মনে ভাবতে থাকে এটাই তার কাছে শেষ সুযোগ, এখনই রুদ্রকে ফেলতে হবে। যেই গান থেমেছে অমনি ফুলকি চেয়ার সরিয়ে দিয়ে নিজে মাটিতে বসে পড়েছে। আর অন্যদিকে চেয়ারে বসতে গিয়ে মাটিতে মুখ থুবড়ে পড়েছে রুদ্র। সেই দেখে ফুলকি তাকে বলে, “দৌড়তে দৌড়াতে তাল সামলাতে পারিনি তো? খুব লেগেছে না জামাইবাবু?” ফুলকির এই বাড়বাড়ন্ত সহ্য করতে পারছে না রুদ্র।

Back to top button