ঘটে গেল চরম স’র্বনা’শ! সুইটির সিঁ’থিতে সিঁ’দুর তুলে দিল সৃজন! সবটা জানতে পেরে বাক্য’হারা হয়ে গেল পর্ণা!

Neem Fuler Modhu Today Episode: বেশ অনেক গুলো বছর এগিয়ে গিয়েছে জি বাংলার (Zee Bangla) নিম ফুলের মধু (Neem Fuler Modhu) ধারাবাহিকের গল্প। এই কিছু বছর বেশ সুখে শান্তিতে দিন যাপন করছিল গোটা দত্ত পরিবার। ধারাবাহিকের এই পর্ব গুলি দেখে মন জুড়িয়ে যাচ্ছিল ভক্তদের। কিন্তু খুব বেশি দিন শান্তি থাকলে দর্শকদের একঘেয়েমি ঘিরে ধরে। তাই আবার নতুন ঝামেলার সম্মুখীন হলো নায়ক নায়িকা। এই ধারাবাহিকের নায়িকার চরিত্রটি বেশ শক্তিশালী। তার অভিনয়ে মুগ্ধ দর্শক মহল। বর্তমানে টিআরপি তালিকায় এই ধারাবাহিকটি একেবারে প্রথম স্থানে নিজেকে ধরে রেখেছে।

বর্তমান গল্প অনুযায়ী, পর্ণা আর সৃজন চেয়েছিল ইশা যাতে কোনভাবেই নিজের হাতে সমস্ত ক্ষমতা না পায়। কারণ, যদি সে একবার সমস্ত ক্ষমতার অধিকারীনি হয়ে যায় তাহলে তাকে আটকানো আরো দুষ্কর হয়ে উঠবে। তখন সে নিজের যা ইচ্ছে তাই করবে এবং তার জন্য তাকে শাস্তি দেওয়া কঠিন হয়ে যাবে। তাই তারা দুজন সুকুমার হালদারের সঙ্গে তার বিয়ে আটকাতে ছোটে। তবে হিতে বিপরীত হয়। তারা দুজনে বেশ ঝামেলার মধ্যে পড়ে। যার জন্য তাদের দুজনকে সুইটি নামক একটি মেয়ের আশ্রয় নিতে হয়।

পর্ণা আর সৃজন ভাবে এই সুইটি নামক মেয়েটি ভীষণই ভালো। নইলে আজকের দিনে এমন পাশে এসে কটা মানুষ দাঁড়াতে পারে? কিন্তু সেই মেয়েটির মনে আসলে যে কি চলছে সেটা যদি একবার তারা জানতে পারতো তাহলে তখন আর সেখান থেকে পালিয়ে আসতো। সুইটি চাইছিল পর্ণাকে যেভাবেই হোক সামনে থেকে সরিয়ে সৃজনকে বিয়ে করতে। শেষ পর্যন্ত সেই পরিণতির দিকেই এগোয় সুইটি। যার ছিটেফোঁটাও বুঝতে পারে না সৃজন। তাই খুব সহজেই তাদের জালে জড়িয়ে পড়ে সে।

সৃজনকে তারা বোঝায়, এখানে একটা শর্ট ফিল্ম চলছে যার নায়ক এসে উপস্থিত হয়নি। তাই সেই চরিত্রটা সৃজনকে করতে হবে। সৃজনও সেটা বিশ্বাস করে ফেলে। সে গ্রামের সবার সামনে বর বেশে সুইটির সাথে বিয়ে করতে রাজি হয়ে যায়। কারণ সেভাবে এই সবকিছুই নাটক। অন্যদিকে প্রচন্ড অস্থির হয়ে ওঠে পর্ণার মন। সে বুঝতে পারে কিছু তো একটা ঘটছে যেটা একেবারেই ঠিক হচ্ছে না। তার মধ্যে সৃজন ফোন না ধরায় আরও বেশি ছটফট করতে থাকে সে। অবশেষে যেখানে এই বিয়ের নাটকটা চলছে সেখানেই ছুটে যায় পর্ণা।

আরও পড়ুন: “ম’ধু’চ’ন্দ্রি’মায় গিয়ে বলেছিল অন্য কারোর সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে…” উত্তম কুমারের নাতনিকে বিয়ে করে ঠ’কে’ছে’ন ভাস্বর!

ধারাবাহিকের আগামী পর্বে দেখা যাবে, সুইটির সাথেbবিয়েটা শেষমেষ হয়েই যায় সৃজনের। সিঁদুর দানের পর সেখানে এসে পৌঁছয় পর্ণা। সৃজন ভীষণ ভয় পেয়ে যায়, সে পর্ণাকে বলে, “ওরা কি সব শর্ট ফিল্ম করার কথা বলছিল তাই আমি এখানে বিয়ের অভিনয় করছিলাম। কিন্তু এখন ওরা বলছে ওর সাথে নাকি আমার বিয়ে হয়ে গেছে।” গ্রামের লোকজন সৃজনের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। সুইটি মনে মনে ভাবে, তার কাজ সফল। পর্ণা সব কিছু শোনার পর অবাক হয়ে যায়, কি করবে কিছুই ভেবে উঠতে পারে না সে।

Back to top button