ইন্ডাস্ট্রিতে পাঁচ দশক কেটে গেছে! তবুও বন্ধু নেই অভিনেত্রী কল্যাণী মণ্ডলের, কেন বললেন অভিনেত্রী?

জি বাংলার (Zee Bangla) জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ঘরে ঘরে জি বাংলা (Ghore Ghore Zee Bangla)। প্রতিদিন বিকেল সাড়ে চারটে বাজলেই মা, ঠাকুমারা টিভির পর্দার সামনে বসে পড়েন এই শো-এর অপেক্ষায়। অপরাজিতা আঢ্য এবং বিশ্বনাথ বসু বাংলার বিভিন্ন প্রান্তের মানুষের কাছে পৌঁছে যান তাদের জীবনযাপনের কথা শুনতে এবং দর্শকদের সঙ্গে ভাগ করে নিতে।

সম্প্রতি ঘরে ঘরে জি বাংলা টিম পৌঁছে গিয়েছিল অভিনেত্রী কল্যাণী মণ্ডলের বাড়িতে। কেরিয়ারের প্রথমদিকে কিশোরী কল্যাণীর সৌভাগ্য হয়েছে উত্তম কুমার, সুচিত্রা সেনের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করার। মহানায়কের বিশেষ স্নেহধন্যা ছিলেন অভিনেত্রী। উত্তম কুমারকে ‘জ্যেঠা’ বলে ডাকতেন। গোটা ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁকে জেঠু বলার স্বাধীনতা একমাত্র তিনিই পেয়েছিলেন।

ghore ghore Zee Bangla

সেখানে কথায় কথায় জীবনের একাধিক তথ্য তুলে ধরেন বর্ষীয়ান অভিনেত্রী। এদিন সঞ্চালক-অভিনেতা বিশ্বনাথ বসু গোটা টিম নিয়ে হাজির হয়ে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী কল্যাণী মণ্ডলের বাড়িতে।

অভিনেত্রীর কথায়, এই ইন্ডাস্ট্রিতে প্রায় পঞ্চাশ বছর কাটিয়ে ফেলেছেন। টানা পাঁচ দশক ধরে অভিনয় করে মানুষের মন জয় করে গড়ে তুলেছেন এই ঘর সংসার। তবে ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁর কোনো বন্ধু নেই। তবে সঞ্চালক যখন প্রশ্ন করেন এই ইন্ডাস্ট্রিতে কোনো বিশেষ বন্ধু ছিল কিনা বা কারোর সঙ্গে খুব যোগাযোগ ছিল কিনা!

আরও পড়ুনঃ বসের পরিবারের মন জিতে নিল নায়িকা! কেন রাইকে নিজের পরিবারের থেকে দূরে রাখতে চাইছে তার স্যার!

উত্তরে অভিনেত্রী সাফ জানান, তিনি বন্ধু হিসেবে ছেলেদের খুব পছন্দ করেন। তবে পরনিন্দা পরচর্চা করতে ভালো লাগে না। ছেলেরা খুব মন খুলে কথা বলে। তাই তাঁর সঙ্গে খুলে মেলে বলে দাবি অভিনেত্রীর। তিনি আরও বলেন, “আমাদের ওদের ওই হইহুল্লোড় মেলে। আমি হইহই করে বাঁচতে ভালোবাসি। ফলে আমার ইন্ডাস্ট্রিতে আমার অরম বন্ধু বলে কেউ নেই।”

Back to top button