বসের পরিবারের মন জিতে নিল নায়িকা! কেন রাইকে নিজের পরিবারের থেকে দূরে রাখতে চাইছে তার স্যার!

বর্তমানে নবাগত ধারাবাহিক গুলির মধ্যে বেশ অন্যরকম এক গল্প পরিবেশন করে জনপ্রিয়তা অর্জন করছে জি বাংলার (Zee Bangla) মিঠিঝোড়া (Mithi Jhora) ধারাবাহিকটি। শুরু হওয়ার সাথে সাথে দর্শক মহলের মন জিতে নিয়েছে এই ধারাবাহিকের নায়িকা রাই। নায়িকার চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে অভিনেত্রী আরাত্রিকা মাইতিকে। টিআরপিতে এখনো অবধি প্রথম পাঁচে প্রবেশ করতে না পারলেও দর্শকদের ধারণা আর কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই টিআরপিতে নিজের জায়গা তৈরি করে নেবে এই মেগা।

এই ধারাবাহিকের গল্প আর পাঁচটা ধারাবাহিকের তুলনায় একটু অন্যরকম। হয়তো এত বড় স্বার্থ ত্যাগ করতে খুব কম নায়িকাকেই দেখেছেন ধারাবাহিক প্রেমী দর্শকরা। বিয়ের আগেই বাবা মারা যাওয়ায় ধারাবাহিকের নায়িকা রাই নিজের হবু স্বামীর সাথে নিজের বোনের বিয়ে দিয়ে দেয়। কারণ পরিবারের বড় মেয়ে হিসেবে পরিবারের সমস্ত দায়িত্ব তখন তার কাঁধে। তাই নিজের সুখ শান্তি বিসর্জন দিয়ে নিজের পরিবারের কথাই আগে ভেবেছে সে।

যদিও এর কোন প্রতিদান পায়নি রাই। সবাই ভুল বুঝেছে তাকে। শুধু তাই নয়, তার নিজের বোন নিলু বর্তমানে হিংসে করে রাইকে। সেভাবে তার দিদি তার থেকে তার স্বামীকে ছিনিয়ে নেবে। তাই নানা রকম ভাবে, নিজের দিদিকে অপদার্থ করে আনন্দ পায় সে। বহুদিন ধরেই একটা চাকরি খুজছিল রাই। কারণ সে আর বোনের শ্বশুরবাড়িতে পড়ে থাকতে চায় না। অবশেষে সেই চাকরির পেয়ে গিয়েছে ধারাবাহিকের নায়িকা। এইবার তার ভাগ্য একটু অন্যদিকে মোড় নিয়েছে।

ধারাবাহিকের আগামী পর্ব গুলিতে দেখা যাবে, ধুমধাম করে পুজো দিচ্ছে ধারাবাহিকের বর্তমান নায়কের পরিবার। রাইয়ের বসের ঠাম্মি বোন এবং মা তিনজনেই রাইয়ের কাজে খুব খুশি। তারা এতক্ষণ ধরে যেটা করে উঠতে পারছিল না সেটা খুব সুন্দরভাবে করে ফেলেছে রাই। সে একজন সাধারণ কর্মচারী হয়ে পরিবারের বিষয়ে মাথা ঘামানোয় তার ওপর ভীষণ রেগে যায় তার স্যার। এসব দেখে এসে স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, তাকে যে জন্য এখানে আনা হয়েছে আর যে কাজটা দেওয়া হয়েছে সে যেন শুধুমাত্র সেইটুকুই করে। এর থেকে বেশি বাড়াবাড়ি যেন সে না করে।

আরও পড়ুনঃ কোর্টে নিজের খেল দেখালো ফুলকি! তার পেশ করা প্রমাণ পাল্টে দিল রুদ্রর চাল! নতুন মোড় ধারাবাহিকে

এরপর রাই তার বসের মায়ের থেকে জানতে পারে, তার ছেলের জীবনে অনেক কিছু ঘটে গিয়েছে, যার পর থেকে ভগবানকে শুধুমাত্র একটা পাথরের মূর্তি বলে মনে করে সে। রাই বুঝতে পারে তার কথাগুলো হয়তো তার স্যারকে কষ্ট দিয়েছে তাই তাড়াতাড়ি স্যারের কাছে ক্ষমা চাইতে চলে যায় রাই। অন্যদিকে স্যারের পরিবারের সকলের ভীষণ পছন্দ হয় রাইকে। ঠাম্মি ভাবতে থাকে যদি এমন একটা মেয়ে তাদের পরিবারের বউ হতো তাহলে ঘরটা আলোয় ভরে যেত। যদি সত্যিই আগামীকাল এমন কিছুই ঘটে তাহলে কেমন লাগবে দর্শকদের?

Back to top button