ভক্তের অসুস্থ বাবার জন্য পার্থনা সৌমিতৃষার, বড় অভিনেত্রী হওয়ার আগেও একজন সুন্দর মানুষ সকলের ‘মিঠাই’, তাই তাকে মানুষ এত ভালোবাসে

মিঠাই (Mithai) শেষ হওয়ার একমাস পার হয়ে গিয়েছে। তবুও মিঠাই নিয়ে ক্রেজ এক বিন্দুও কমেনি দর্শক মহলে। প্রতিদিন জি বাংলার (Zee Bangla) পর্দায় এই ধারাবাহিকটি দেখতে ভুলতেন না দর্শকরা। আর এই ধারাবাহিকে দর্শকদের কাছে একজন অন্যতম এবং প্রধান আকর্ষণ ছিলেন মিঠাই অর্থাৎ অভিনেত্রী সৌমিতৃষা কুন্ডু।

তার মধ্যে যেন একটা জাদু ছিল। মিঠাইয়ের কথা বলা, তার হাবভাব, ব্যবহার সবকিছুই ভীষণভাবে আকৃষ্ট করতে দর্শকদের। ধারাবাহিকের পর্দায় মিঠাই ছিল ভীষণ সাদা মাটা সহজ সরল ভালো মনের একটি মেয়ে। আর এই বিষয়টাই দর্শকদের আরো অনেক বেশি আকর্ষণ করত।

কিন্তু কেবলমাত্র অনস্ক্রিন নয় পর্দার পিছনেও তার অসম্ভব সুন্দর একটি মানসিকতা রয়েছে। যার প্রমাণ তিনি নিজের অজান্তেই প্রতি মুহূর্তে দিয়ে চলেছেন। আর তার পাশাপাশি দর্শকদের কাছে আরো অনেক বেশি আদরের একটি মানুষ হয়ে উঠছেন। আরো একবার তিনি তার কথাবার্তা এবং ব্যবহারের মধ্যে দিয়ে তার দর্শকদের মনে জায়গা করে নিলেন।

আজকের দিনে সেলিব্রিটি মানেই আকাশ ছোঁয়া, বা বলা যায়, ধরা ছোঁয়ার সীমানার বাইরে। কোন এক সেলিব্রেটির কাছ থেকে মেসেজের রিপ্লাই পাওয়া স্বপ্নের মতন। তবে সেই সব দিক থেকে নিজেকে দূরে রেখে দর্শকদের সাথেই মিশে থাকতে ভালোবাসেন সৌমিতৃষা। সামাজিক মাধ্যমে “Soumitrisha’s Magic” নামে একটি ফ্যান পেজ রয়েছে। যার অ্যাডমিনের বাবা কোমায়। আর এই কথাটি অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে নিজের পছন্দের মানুষ মিঠাইকে জানালেন অ্যাডমিন।

Bengali serial তার প্রত্যুত্তর পাওয়ার কোন প্রত্যাশা ছিল না। কিন্তু মিঠাইয়ের নজর অ্যারায়নি তার ভক্তের এই অসম্ভব কষ্ট। সৌমিতৃষা রিপ্লাই করেন, “বাবা লোকনাথকে বলো, সব বিপদ দূর করে দেবেন, আর আমিও তোমার বাবার জন্য প্রার্থনা করব সোনা।” তিনি আরো বলেন, “তোমার বাবাকে ভগবান কেড়ে নেবে না মা। ভগবানকে ডাকো রোজ, ঠিক হয়ে যাবে বাবা।” অভিনেত্রীর এমন প্রত্যুত্তরে অভিভূত অ্যাডমিন সহ গোটা দর্শক মহল।
Bengali serial

Back to top button