ত্রিশূল হাতে তুলে নিয়ে পরাগ পলাশ আর প্রতীক্ষার হাত থেকে মধুবালাকে রক্ষা করলো শিমুল!

জি বাংলা (Zee Bangla) চ্যানেলে সম্প্রচারিত একটি অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক হচ্ছে কার কাছে কই মনের কথা (Kar kache koi moner kotha)। ধারাবাহিকের নায়িকা শিমুলের চরিত্রে রয়েছেন মানালি দে এবং নায়ক পরাগের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে দ্রোণ মুখোপাধ্যায়কে।

ধারাবাহিকের বর্তমান প্লট অনুযায়ী, অনেক কষ্ট করে ফের একটু সুখের মুখ দেখেছে ধারাবাহিকের নায়িকা শিমুল। অনেক ধুমধাম করে পাড়ার সবাইকে নিয়ে আনন্দের সাথে দুর্গা পুজো পালন করছে সে। তার এই আনন্দে শামিল হয়েছে মধুবালাও।

প্রথম থেকেই কুসংস্কারের ঘোর বিরোধী শিমুল। মাকে বরণ করার সময় মধুবালা যখন বিধবা বলে পিছিয়ে আসে, তখন তাকে ভালোভাবে বোঝায় সে। শিমুল বলে, নিজের মেয়েকে মিষ্টি খাইয়ে বিদায় করা যেতে পারে এদিকে মাকে মিষ্টি খাইয়ে বিদায় করা যেতে পারে না? শিমুলের কথা মনে গিয়ে লাগে মধুবালার।

শুধু মধুবালা নয়, ওখানে উপস্থিত অন্যান্য মানুষজনেরাও শিমুলকে সাপোর্ট করে। ঠিক তখনই পরাগ পলাশ আর প্রতীক্ষা এসে মধুবালাকে সেখান থেকে টেনে নিয়ে চলে যেতে চায়। পরাগ বলে এসব অন্যায়। প্রতীক্ষা অব্দি এর বিরোধিতা করে। তখনই ত্রিশূল হাতে পরাগ পলাশের সামনে এসে দাঁড়ায় শিমুল।

শিমুল বলে, “কেউ এক পাও এগোবে না। এই নাকি স্কুল শিক্ষক। এদিকে নিজেরই এত শিক্ষার অভাব। আর প্রতীক্ষা! সেতো শিক্ষিত চাকরি করা মেয়ে। এরপরেও এমন সংস্কার নিয়ে পড়ে আছে সে ভেবেও লজ্জা লাগে ছি। আর পলাশ তো যেকোনো সময় যে কাউকে খুন করে দিতে পারে। এখান থেকে চলে যাও তোমরা এখনই চলে যাও।” এরপর অবশেষে মধুবালা মাকে বরণ করে আর তার সাথে শিমুলের কাছে কৃতজ্ঞ হয়ে থাকে।

Back to top button