জগদ্ধাত্রীকে অপমান করতেই নিজের বাবার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ালো স্বয়ম্ভু! জ্যাসের উপর নজর রাখছে বিজয়লক্ষ্মী!

বর্তমানের ধারাবাহিকের পর্দায় অ্যাকশন জিনিসটা সেভাবে দেখা যায় না বললেই চলে। সেখানে সমস্ত একঘেয়েমি থেকে বেরিয়ে নায়িকার দমদার অ্যাকশন দিয়ে ভরপুর এক অসাধারণ গল্প পরিবেশন করছে জি বাংলার (Zee Bangla) নাম্বার ওয়ান ধারাবাহিক জগদ্ধাত্রী (Jagaddhatri)। চলতি সপ্তাহেও বেঙ্গল টপার হয়েছে এই ধারাবাহিক। প্রাপ্ত নম্বর আকাশ ছোঁয়া।

ধারাবাহিকের বর্তমান গল্প অনুযায়ী, উৎসবকে তার প্রাপ্য শাস্তি পাইয়ে দিতে উঠে পড়ে লেগেছে কৌশিকী আর জগদ্ধাত্রী। এর মাঝেই এক আমল আর ছেলেকে খুঁজে বের করা নিয়ে নতুন কেস এর তদন্ত করছে সে। সেখানেই হাজারো এক রহস্য উদঘাটন করতে হচ্ছে তাকে। অনেকেই তার কাছ থেকে অনেক কিছুই লুকিয়ে যাচ্ছে নিজেদেরকে বাঁচানোর জন্য। এই লুকানো কথাগুলো এবং বিষয়গুলো জানতে নিজের সর্বস্ব দিয়ে চেষ্টা করছে জগদ্ধাত্রী।

ধারাবাহিকের আজকের পর্বে দেখা যায়, মেহেন্দি জগদ্ধাত্রীকে নোংরা নোংরা ভাষায় অপমান করতে থাকে। সে বলে নিজের প্রাক্তন প্রেমিককে ভুলতে না পেরে জগদ্ধাত্রী এই সমস্ত করেছে। সে তার বোনের সুখ সহ্য করতে পারেনি। জগদ্ধাত্রী যেই ঘুড়িয়ে মেহেন্দিকে দুটো কথা বলে ওমনি রাজনাথ এসে জগদ্ধাত্রীকে আরো বেশি অপমান করে। আর বলে সে যেন এই বাড়ি ছেড়ে চলে যায়। তখন কৌশিকী এসে বলে স্বয়ম্ভু আর জগদ্ধাত্রী এই বাড়ি ছেড়ে কোথাও যাবে না। ওরা এই বাড়ির সদস্য আর স্বয়ম্ভু এই বাড়ির বড় ছেলে। রাজনাথ বলে সে এটা মানে না।

তখনই সেখানে চলে আসে স্বয়ম্ভু। আর সে নিজের বাবাকে তার জায়গাটা দেখিয়ে দেয়। স্বয়ম্ভু রাজনাথকে বলে, “আপনাকে আমি বাবা বলে আর মানবো না। আপনার বাবা হওয়ার কোন যোগ্যতা নেই। যখন উৎসবকে জেল থেকে বের করার প্রশ্ন আসে তখন আপনি আমাকে মেনে নেন আর যখন সেটা হয় না তখন আবার ছুঁড়ে ফেলে দেন। আপনি কি বাবা? যখন আমার সব থেকে প্রয়োজন ছিল নিজের বাবাকে তখন তো একবারও এসে আমাকে জড়িয়ে ধরেননি। তাহলে আজ এই কথাগুলো বলছেন কোন অধিকারে? আর আমার স্ত্রীকে কথায় কথায় একদম অপমান করবেন না, আপনার কোন অধিকার নিয়ে ওকে অপমান করার।” রাজনাথ অবাক হয়ে যায় স্বয়ম্ভুর মুখে এসব কথা শুনে।

আরো পড়ুন: রণজয় বিষ্ণুর ছবি দেখিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার প্রতারণা! লাইভে এসে ভক্তদের সতর্ক করলেন অভিনেতা

স্বয়ম্ভু জগদ্ধাত্রীকে বলে, সে যেন বেশি চিন্তা না করে। জগদ্ধাত্রী বুঝতে পারে স্বয়ম্ভু আর কৌশিকী তাকে আগলে রেখেছে এই বাড়িতে। এরপর অনিন্দিতার কাছে আবারো চলে যায় জগদ্ধাত্রী। সেই দিন ওই ঘরে ঠিক কি কি হয়েছিল সেটা জানতে চায় তার থেকে। ঋষি অস্মিতাকে পছন্দ করত এই কথাটাও খোলাখুলি অনিন্দিতাকে বলে জগদ্ধাত্রী। কাজের বাহানায় অনিন্দিতা জগদ্ধাত্রীকে এড়িয়ে যায়। ঠিক তখনই সেখানে চলে আসে বিজয়লক্ষী। তাকে দেখে জগদ্ধাত্রী ভাবে, তবে কি তার তার প্রত্যেকটা পদক্ষেপের উপর নজর রাখছে বিজয়লক্ষী!

Back to top button