শিমুলের কাছে ভালো সাজা আর হল না! চামার পলাশ খরচার টাকা দিতে হবে শুনেই আসল চেহারা দেখালো

জি বাংলা (Zee Bangla) চ্যানেলে সম্প্রচারিত একটি অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক হচ্ছে কার কাছে কই মনের কথা (Kar kache koi moner kotha)। ধারাবাহিকের নায়িকা শিমুলের চরিত্রে রয়েছেন মানালি দে এবং নায়ক পরাগের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে দ্রোণ মুখোপাধ্যায়কে। বর্তমানে অনেক বড় বিপদ থেকে উদ্ধার হয়েছে নায়িকা।

ধারাবাহিকের বর্তমান প্লট অনুযায়ী, পুজোর কটা দিন সবার সাথে মিলে মিলেমিশে বেশ হই হই করে কাটাচ্ছিল নায়িকা শিমুল। কিন্তু তার সেই আনন্দে কুনজর পড়ে তার স্বামী আর দেওরের। তারা শিমুলকে বিষ খাইয়ে মেরে ফেলার চেষ্টা করে। সবাই খুব ভয় পেয়ে যায় এবং শিমুলকে হাসপাতালে ভর্তি করে।

শিমূলের জ্ঞান ফেরার পর বিপাশা ও বাকিরা মিলে পুলিশের কাছে গিয়ে পরাগ আর পলাশের নামে অভিযোগ করে। তাদের এতদিন ধরে শিমুলের উপর করা সমস্ত অন্যায় অত্যাচারের কথা পুলিশকে জানায় তারা। এরপর পুলিশের সন্দেহ হয় পরাগ আর পলাশের উপর। তাই তারা হসপিটালে আসে শিমূলের মতামত জানতে।

আরো পড়ুন:নতুন প্রোমো! গর্ভবতী হতেই পড়াশুনা বন্ধ হল রানীর! শুক্লার আদেশ নাকি নিজের স্বপ্ন কোনটা পূরণ করবে সে!

পুলিশ যখন শিমুলকে গিয়ে জিজ্ঞেস করে, তার কারো উপর সন্দেহ হয় কিনা তখন শিমুল জানায় তার কারো উপর সন্দেহ নেই। এই শুনে বিপাশা বলে, কিছু জিনিস আলাদা করে বলে দিতে হয়না, দেখেই বোঝা যায়। কিন্তু তাও শিমুল কাউকে দোষারোপ করে না। সবাই স্পষ্ট বুঝতে পারে শিমুল এড়িয়ে যাচ্ছে। সে জানে তবুও কোনো এক অজানা কারণে প্রকাশ করছে না।

ধারাবাহিকের আগামী পর্বে দেখা যাবে, সবার চোখে ভালো সাজার জন্য, নাটক করে শিমুলকে হসপিটাল থেকে নিয়ে যেতে আসে পরাগ। তখন বিপাশা বলে যদি স্বামির দায়িত্ব পালন করার থাকে তাহলে ওর এখানে যা খরচ হয়েছে সেই টাকাটা যেনো পরাগ দেয়। তখন পরাগ বলে সেই টাকা দেওয়া নাকি বিপাশাদের দায়িত্ত্ব। কারণ তাদের সাথে মেলামেশা করার জন্যই নাকি আজ শিমুলের এমন অবস্থা।

Back to top button