মেরে শিমুলের মাথা ফাটিয়ে দিল পরাগ, আর মুখ বুঝে থাকা না এবার পুলিশে গেল শিমুল!

বর্তমানে জি বাংলা (Zee Bangla) চ্যানেলে যে সমস্ত ধারাবাহিক গুলি সম্প্রচারিত হচ্ছে তার মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় হচ্ছে কার কাছে কই মনের কথা (Kar kache koi moner kotha)। সমাজের বাস্তব দিকগুলিকে প্রতিটি পর্বে তুলে ধরছে এই ধারাবাহিক। ধারাবাহিকের নায়িকা শিমুলের চরিত্রে রয়েছেন মানালি দে এবং নায়ক পরাগের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে দ্রোণ মুখোপাধ্যায়কে। ধারাবাহিকের প্রতিটি চরিত্রের অভিনয় মন ছুঁয়ে যাচ্ছে দর্শকদের।

এ দিনের পর্বে দেখা যায় শিমুলকে তার শাশুড়ি মা অনেক করে বোঝানোর চেষ্টা করছে যে শিমুল যেন এবার থেকে পুতুলদির ঘর ছেড়ে নিজের স্বামীর ঘরে গিয়ে থাকে। মন থেকে ইচ্ছা না থাকলেও শাশুড়ি মার কথা ফেলতে পারেনি শিমুল। তাই শেষ পর্যন্ত পরাগের সাথে থাকতে রাজি হয়ে যায় সে।

শিমুল বলে তার এবং পরাগের মধ্যে কোন মায়া তৈরি হয়নি। আর এই মায়া না থাকলে কোন সম্পর্ক টিকিয়ে রাখা সম্ভব হয় না। শিমুলের শাশুড়ি মা শিমুলকে বলে আর কটা দিন গেলে সব ঠিক হয়ে যাবে। শেষ বয়সে এসে শিমুলের শ্বশুর মশাই এরও মধুবালার প্রতি মায়া তৈরি হয়েছিল। এরপর মধুবালার মন রাখতে পরাগের ঘরে চলে যায় শিমুল।

কিন্তু তার ঘরে গিয়ে হিতে বিপরীত হয়। শিমুল ঘরে ঢোকামাত্র একাধিক নোংরা নোংরা কথা বলতে থাকে পরাগ। সে শিমুলকে বলে তার সাথে আর থাকতে পারবে না কারণ এমন কাউকে সে স্ত্রী বলে মানতে পারবে না যার একটা বয়ফ্রেন্ড আছে। শিমুলও পরাগের কথার উচিত জবাব দেয় আর তখনই পরাগ শিমুলের মুখ আর গলা চিপে ধরে। প্রচন্ড রেগে যায় শিমুল।

এরপর শিমুল বলে পরাগের মতন মানুষেরা মেয়েদের কেবল একটা জিনিসের জন্যই কাজে লাগায়। এই শুনে পরাগ বলে তাদের মতন মেয়েদের ওই একটা জিনিসেই কাজে লাগে এই বলে ঘরের আলো নিভিয়ে শিমুলকে খাটের দিকে ঠেলে দেয় আর তাতেই শিমুলের মাথা কেটে রক্ত বের হতে থাকে। এরপর শিমুল চিৎকার করে ওঠে আর পরাগকে বলে আর সে চুপ করে থাকবে না এর ফল খুব খারাপ হবে।

Back to top button