কেউ গুন্ডা পেটায় তো কেউ বুদ্ধি করে কেস সল্ভ করে, বর্তমান সিরিয়ালগুলোর নায়িকাদের সাহসী রূপ দেখে খুশি দর্শক

সময়ের সাথে সাথে বাংলা টেলিভিশন (Bengali Television) জগতে এসেছে একাধিক পরিবর্তন। বাংলা বিনোদন জগতের প্রথম সারির চ্যানেলগুলিতে সম্প্রচারিত বিভিন্ন ধারাবাহিকগুলি (Bengali Serial) পূর্বের তুলনায় অনেক পরিবর্তন এনেছে।

পূর্বের তুলনায় বর্তমানে টিআরপির প্রভাব অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। আগেকার ধারাবাহিক গুলি যেমন বছরের পর বছর নির্বিঘ্নে চলতো, এখন আর তেমনটা হয় না। দু মাসের মধ্যে নিজেকে প্রমাণ করতে না পারলে সেই ধারাবাহিক বন্ধ করে দেয় চ্যানেল। ধারাবাহিকের চরিত্র গুলির মধ্যেও এসেছে অনেক পরিবর্তন।

পূর্বের ধারাবাহিক গুলিতে দোষীরা এত সহজে শাস্তি পেতো না। ধারাবাহিকের নায়িকারাও প্রতিবাদ করতে জানতো না। ঘরের মধ্যে মুখ লুকিয়ে দিনরাত কান্নাকাটি করতে দেখা যেত তাদের। লড়াই করার মনোভাব তাদের মধ্যে দেখা যেত না। নিজের থেকে কিছু প্রমাণ না হওয়া অবদি তারা কোন পদক্ষেপও সেভাবে দিত না।

কিন্তু বর্তমানে সময়ের সাথে সাথে এই চরিত্রগুলোতেও অনেক পরিবর্তন এসেছে। এখন আর নায়িকারা চুপ করে থাকে না। তাদের সঙ্গে যদি কোন অন্যায় হয়, তৎক্ষণাৎ তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ায় তারা। চোখের জল না ফেলে অন্যায়ের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলতে দেখা যায় তাদের যার দরুন দোষীরাও অনেক তাড়াতাড়ি শাস্তি পায়। আর এই বিষয়টি বেশ পছন্দ করছেন ভক্তরা।

আরও পড়ুনঃ ঈশাকে জব্দ করতে নতুন প্ল্যান, ১০ লক্ষ টাকা নেওয়ার পরও পর্ণা বললো অন্য কথা! চমকে গেলো সৃজন

এই পরিবর্তনের প্রমান স্বরূপ উল্লেখ করা যেতে পারে পর্ণা (নায়িকা তার শ্বশুরবাড়িকে আপন করে নেওয়ার গল্প নিয়ে শুরু হয় এবং অন্যায়ের বিরোধিতা করে) তুঁতে (ফ্যাশন ডিজাইনার হওয়ার স্বপ্নের দিকে এগিয়ে চলার পথে আসা সমস্ত বাধার সম্মুখীন হয়), জগদ্ধাত্রী (পুলিশ অফিসার এবং একজন আদর্শ নারী হওয়ার দরুন কোনো অপরাধীকে ছাড় দেয় না), ঐশানী (ইচ্ছার বিরুদ্ধে একটি বাড়িতে বউ হয়ে এসে সেই বাড়িকে এবং স্বামীকে বর্তমানে রক্ষা করে চলেছে), শিমুল (শশুর বাড়িতে স্বামীর প্রতিটা মারের জবাব দিয়ে নিজের অপমানের প্রতিশোধ নিচ্ছে) প্রভৃতি নায়িকাদের কথা।

Back to top button