তিনি মানুষ চেনেন! তাই এত কিছুর পরেও ময়ূরীকেই সমর্থন মীনাক্ষীর! “কী অদ্ভুত মহিলা!” রেগে লাল নেটিজেনরা

বাংলা টেলিভিশনে দুনিয়ায় এখন যে ধারাবাহিকটি দর্শকদের মনোরঞ্জন করে চলেছে প্রত্যেকটা মুহূর্তে সেই ধারাবাহিকের নাম ইচ্ছে পুতুল (Ichhe Putul) ।‌ বাংলা ধারাবাহিকের দুনিয়ায় এখন শিরোনাম দখল করে নিয়েছে এই ধারাবাহিকটি। তবে শুধুমাত্র শিরোনাম দখল করাই নয়। টিআরপি তালিকাতেও কিন্তু দারুণ পারফরম্যান্স এই ধারাবাহিকের।

দুর্নিবার গতিতে ছুটে চলেছে এই ধারাবাহিকটি।‌ আর স্লট বদল হতে তো কথাই নেই। নাগাড়ে টিআরপি তালিকায় এই ধারাবাহিকটি তোমাদের রানীকে পরাস্ত করে চলেছে। এই ধারাবাহিকের অবাধ জনপ্রিয়তা তৈরী হয়েছে। উল্লেখ্য, এই মুহূর্তে এই ধারাবাহিকের গল্প ঠিক এতটাই জমাট বেঁধে উঠছে যে দর্শকের পক্ষেও এই ধারাবাহিক না দেখে থাকা সম্ভব হচ্ছে না। আর তাই মন্ত্রমুগ্ধের মতো দর্শক‌ও এই ধারাবাহিকটি দেখে চলেছেন।

দর্শকরা এতদিন যাবৎ যে পর্বটি দেখার জন্য উৎসুক হয়েছিলেন, অবশেষে সেই পর্বটি দেখেছেন। রূপের অকথ্য অত্যাচারের হাত থেকে গিনিকে উদ্ধার করেছে মেঘ। যে মেঘের কথা রূপের সঙ্গে গিনির বিয়ের আগে পর্যন্ত কেউ শোনেনি, উঠতে বসতে যারা মেঘকে অপমান করেছে তারাই এখন মেঘের কাছে কৃতজ্ঞ।

অন্য কেউ জানুক বা না জানুক গিনি জানে সবটাই ছিল ময়ূরীর ষড়যন্ত্র। আর গিনিদের বাড়িতে পুলিশ আসার পর থেকেই কিভাবে ড্যামেজ কন্ট্রোল করবে সেটাই ভেবে কূল কিনারা করতে পারছে না ময়ূরী।‌ গঙ্গোপাধ্যায়ের পরিবারের ময়ূরীর হাতের পুতুল ছিল গিনি। সেই এখন বিপক্ষে চলে গেছে। তবে রয়েছেন একজন। তিনি মানুষ চেনার কারিগর সৌরনীলের মা মীনাক্ষী গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি নাকি মানুষ চিনতে পারেন আর এমনই এক অদ্ভুত বিষয় নিয়ে তার গর্বের অন্ত নেই।

ময়ূরীকে তিনি ভীষণ ভালোবাসেন। মেঘকে সরিয়ে নিজের ছেলের বউ হিসেবে ময়ূরীকে দেখার জন্য তার প্রাণ আকুল। আর তাই এত বড় কাণ্ডের পর ময়ূরী যখন গঙ্গোপাধ্যায় পরিবারে ছুটে এসে নিজের ইমেজ রক্ষা করার চেষ্টা করছে তখন অন্যদের তোপের সামনে দাঁড়িয়েও সমানে ময়ূরীকে আড়াল করার চেষ্টা করে চলেছেন মীনাক্ষী। আর যা দেখে দর্শকরা বলছেন এই মহিলা বড় অদ্ভুত! কি দিয়ে ময়ূরী একে জাদু টোনা করেছে কে জানে!

Back to top button