হাজার চেষ্টা করেও মেঘকে বাবার বিপক্ষে পাঠাতে পারল না ময়ূরী, গিনি আর দিব্যেন্দুকে হাতেনাতে ধরে ফেলল রূপ!

একজন বাবা তার মেয়েকে কতটা ভালবাসতে পারে বিশ্বাস করতে পারে এবং একটি মেয়ের তার বাবার প্রতি কতটা আনুগত্য দেখাতে পারে তার একটি ছোট্ট নিদর্শন দিচ্ছে জি বাংলার (Zee Bangla) চ্যানেলের ইচ্ছে পুতুল (Ichhe Putul)। অন্যান্য দিক ছাড়াও বাবা-মায়ের সুন্দর বন্ডিং বর্তমানে এই ধারাবাহিকের প্রধান বৈশিষ্ট্য হয়ে উঠেছে।

বর্তমান প্লট অনুযায়ী, সুস্থ হতেই মেঘ আবারো নীলকে নিজের থেকে দূরে সরিয়ে দিয়েছে। সে যে ধীরে ধীরে দুর্বল হয়ে পড়ছিল সেটা বুঝতে পেরে নীল ভেবেছিল এবার হয়তো তাদের মধ্যে সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে কিন্তু সে সব কিছুই হয়নি। অনিন্দ্য সেটা হতে দেয়নি।

ধারাবাহিকের এই দিনের পর্বে দেখা যায়, সবাই যে মেঘকে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে চাইছে আর মেঘ বাবার কথা মত নিজেকে তাদের থেকে গুটিয়ে নিচ্ছে এই বিষয়টা বুঝতে পেরে ময়ূরী চেষ্টা করে ভুলভাল বুঝিয়ে মেঘ কে তার বাবার বিরুদ্ধে চালিত করার। কিন্তু এসব করেও তেমন কোন লাভ করে উঠতে পারে না ময়ূরী।

নীলের গোটা পরিবার মেঘের বাড়িতে এসে মেঘকে ফিরে যাওয়ার অনুরোধ করে। কিন্তু মেঘ তাদেরকে স্পষ্ট জানিয়ে দেয় যে সে আর ফিরতে পারবে না। এতগুলো মানুষের কথার দাম দিতে না পারার জন্য সবার সামনে ক্ষমা চেয়ে নেয় মেঘ। সবটাই চুপ করে দেখতে থাকে অনিন্দ্য।

অন্যদিকে আবারো সেই একই রেস্টুরেন্টে দেখা করে গিনি আর দিব্যেন্দু। দিব্যেন্দু বলে মেঘের বাবা আর গুরুজি দুজন মিলে যেহেতু থানায় গিয়ে একটা রিপোর্ট করেছিল তাই সেই বেশি সে তদন্ত চলছে। অনেক কিছু জানাও যাচ্ছে। এরপর কারণে কিছুক্ষণের জন্য দিব্যেন্দু ওখান থেকে চলে গেলে সেখানে এসে হাজির হয় রূপ। তাকে আর দিব্যেন্দুকে যদি একসাথে রূপ দেখে নেয় তাহলে যে সর্বনাশ হয়ে যাবে এটা ভেবে শিউরে উঠে গিনি।

Back to top button