ছোটো হলেও ‘মানিকের’ মত জামাই পাওয়া ভাগ্যের ব্যাপার, শাশুড়ি মায়ের অপমানের জন্য যোগ্য শিক্ষা দিল নিজের পিসিকে

স্টার জলসায় (Star jalsha) সম্প্রচারিত যে সমস্ত ধারাবাহিকগুলি ধীরে ধীরে দর্শকদের মধ্যে জনপ্রিয়তা অর্জন করছে সেই সব ধারাবাহিকের মধ্যে একটি হল কমলা ও শ্রীমান পৃথ্বীরাজ (Komola o Sriman Prithviraj)। ধারাবাহিকের দুই খুদে দম্পতির দাম্পত্য জীবন এবং সেই জীবনের ঘটে চলা একাধিক উত্থান পতন, দর্শকদের প্রধান আকর্ষণের বিষয়।

গল্পের আসল যে প্লট

প্রথম থেকেই মানিকের বাড়ির একাধিক মানুষ কমলাকে মেনে নিতে পারেনি মন থেকে। তার ওপর কমলার উচিত কথা তার বুদ্ধিমত্তা তার শিক্ষাগত যোগ্যতা ইত্যাদি কোনটাই পছন্দ করে না মানিকের পিসিরা। এত বুড়ো বয়সেও কমলার পিছনে লাগবে ছাড়ে না মানিকের দুই পিসি।

উঠতে বসতে কমলা এবং তার বাড়ি তুলে খোটা দেয় তারা। সম্প্রতি বিয়ে হয়েছে মানিকের পিসির ছেলের। সেই বিয়েতেও অনেক বাধা এসেছে, তবে সেইসব বাধা পেরিয়ে অবশেষে বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। তবে মেয়ের মুখ যতটা মিষ্টি মুখের কথা এবং মন ততটাই তেতো। আসা ইস্তক কমলাকে নানান রকম ভাবে অপদস্ত করেছে সেই বউ। যদিও কোন কিছুতেই কমলাকে সে টপকাতে পারবেনা কখনোই।

সম্প্রতি যেভাবে অপমান করা হয় কমলার মাকে

কমলার মা অন্য জাতের মানুষদের খাবার খাওয়ায় তাই কমলার মাকে অনেক কিছু বলে অপমান করে মানিকের পিসি। সে বলে কমলার মায়ের হাত থেকে খাবার খেলে তার জাত যাবে। ভীষণ কষ্ট পায় কমলা ও তার মা। কষ্ট হলেও মেয়ের শ্বশুর বাড়ি বলে কমলার মা কিছুই বলতে পারেনা, আর এদিকে নরম মাটি পেয়ে ইচ্ছেমতো আঁচড় বসাতে থাকে মানিকের পিসি। শেষে তো নতুন বউয়ের মায়ের সাথেও তুলনা টেনে আনে তার।

অনেকক্ষণ ধরেই সবটা দেখছিল মানিক কিন্তু এইবার কমলার কষ্ট হচ্ছে দেখে মানিকও চুপ থাকতে পারে না। পিসিকে যোগ্য জবাব দিতে কমলার মায়ের হাত থেকে খাবার খেয়ে পিসিকে বলে যে সে তার শাশুড়ি মায়ের হাতের খাবার খেলো, তাহলে এবার তারও কি জাত গেল? সে আরো বলে বউ যখন তার মাকে আপন করে নিয়েছে তখন সে কেন পারবে না তার শাশুড়ি মাকে আপন করে নিতে। সবার সামনে এমন উচিত জবাব দেওয়ায় রাগে বিজিবিজ করতে থাকে মানিকের পিসি। তবে এই দিনের পর্বে মানিকের কথাবার্তা ব্যবহার চরিত্র সবকিছুই দর্শকদের কাছে আরো অনেক বেশি পছন্দের হয়ে উঠলো।

Back to top button