ছেলের কান্ড দেখে লজ্জায় মাথা নিচু করলো মধুবালা, পরাগকে শাস্তি দেওয়ায় পাশে থাকবে মধুবালা!

এই মুহূর্তে জি বাংলা (Zee Bangla) চ্যানেলে যে সমস্ত ধারাবাহিক গুলি সম্প্রচারিত হচ্ছে তার মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় হচ্ছে কার কাছে কই মনের কথা (Kar kacche koi moner kotha)। ধারাবাহিকের নায়িকা শিমুলের চরিত্রে রয়েছেন মানালি দে এবং নায়ক পরাগের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে দ্রোণ মুখোপাধ্যায়কে। সমাজের বাস্তব দিকগুলিকে প্রতিটি পর্বে তুলে ধরছে এই ধারাবাহিক।

এই দিনের পর্বে দেখা যায় তুতুল আর তার মা এসেছে মধুবালার বাড়ি। কারণ তাদের বাড়িতে দুধ শেষ। তুতুলের বাবা সকালবেলা দুধ খায় আর তারপর ওষুধ খায়। তাই উপায় না পেয়ে মধুবালার বাড়িতে দুধ নিতে আসে তারা। তখনই চায়ের জন্য অনেকগুলো কথা শুনিয়ে দেয় পলাশ।

এরপর তুতুলকে তার ছেলে বন্ধুর সাথে ঘোরার জন্য কটুক্তি করলে মধুবালা পলাশকে উল্টে একাধিক কথা শুনিয়ে দেয়। মধুবালা বলে পলাশও সেই একই কাজ করে তাই তার কোন অধিকার নেই তার বোনের দিকে আঙুল তোলার। মায়ের থেকে এমন কথা শুনে আর কিছু বলার থাকে না পলাশের।

অন্যদিকে দেখা যায় শতদ্রু ও তার বন্ধু বান্ধবীরা মিলে শিমুলের এই করুন অবস্থা নিয়ে আলোচনা করতে থাকে। শতদ্রু তার বন্ধুদের বলে এত অপমান অত্যাচার সহ্য করে শিমুলের ওই বাড়িতে থাকা উচিত নয়। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ওখান থেকে বেরিয়ে একটা সুস্থ স্বাভাবিক জীবনে ফেরা উচিত ওর। এছাড়াও সে স্বীকার করে এখনো অব্দি শিমুলকে ভালোবাসে শতদ্রু।

আরও পড়ুন: অবশেষে মিশকার খেলা শেষ, সূর্য সাথে হাতাহাতির মধ্যেই গুলি চলে মৃত্যু হল তার! দুর্ধর্ষ পর্ব আজ

এরপর দেখা যায় সিঁড়ি থেকে নামছে শিমুল। পুতুল খেয়াল করে তার মাথা অনেকখানি কেটে গিয়েছে। শিমুল তার শাশুড়ি মায়ের সামনে গিয়ে বলে, “তোমার ছেলে আমার কি অবস্থা করেছে দেখো, ও একটা জানোয়ার।” চোখে জল চলে আসে মধুবালার, নিজেকে অপরাধী মনে হতে থাকে তার। শিমুল বলে তাকে এবার বেরোতে হবে তার অন্য কাজ আছে। তবে কি এবার পুলিশের দ্বারস্থ হবে শিমুল?

Back to top button