‘অনেক চ্যালেঞ্জ ছিল, আমরা রোজ ভাবতাম কাল আবার শ্যুটিং হবে কিনা…’, ‘মিলি’ বন্ধ হওয়া নিয়ে মুখ খুললেন অনুভব-খেয়ালী

জি বাংলার (Zee Bangla) রাত দশটার স্লট দখল করে থাকতো ধারাবাহিক ‘মিলি’ (Mili)। ‘অষ্টমী’ (Ashtami) আসার ফলে কোপ পড়েছে এই ধারাবাহিকের কপালে।‌ অল্প কয়েক দিনের মধ্যেই শেষ হয়ে যাচ্ছে অনুভব কাঞ্জিলাল ও খেয়ালী মন্ডল অভিনীত এই ধারাবাহিক। হঠাৎ করে ধারাবাহিক শেষ হতে মন খারাপ দর্শকদের।‌ কি বলছেন প্রধান নায়ক-নায়িকা? সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে মুখ খুললেন অনুভব কাঞ্জিলাল (Anubhav Kanjilal)খেয়ালী মন্ডল (Kheyali Mondal)

কয়েক মাসের মধ্যেই শেষ হয়ে গেল জি বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘মিলি’। সিরিয়ালের শেষ পর্বের শ্যুটিং সেরে ব্যক্তিগত জীবনে ফিরেছেন‌ নায়ক -নায়িকা। অভিনেত্রী খেয়ালী মন্ডলের এটি ছিল দ্বিতীয় ধারাবাহিক। এর আগে ‘আলতা ফড়িং‌’ ধারাবাহিকের নায়িকা ছিলেন খেয়ালী। প্রথম থেকেই টিআরপি তালিকায় প্রভাব ফেলতে পারেনি জি বাংলার এই ধারাবাহিকটি। অভিযোগ উঠছে, টিআরপি কম থাকার কারণেই হঠাৎ করে ‘মিলি’ শেষ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল চ্যানেল কর্তৃপক্ষ।

mili

ধারাবাহিকের অভিনেত্রী খেয়ালী বলেন, ‘আলতা ফড়িং’ এর চেয়েও ‘মিলি’ তার কাছে এগিয়ে। হতে পারে টিআরপি তালিকায় এই জনপ্রিয়তার প্রভাব পড়েনি, তবে অনুভব এবং খেয়ালী দুজনেরই মত, কম বয়সীদের মধ্যেই ধারাবাহিক যথেষ্ট জনপ্রিয় হয়েছিল। কিন্তু টিআরপি তালিকায় তার প্রভাব পড়লো না কেন? অনুভব বলেন, এখন সোশ্যাল মিডিয়াতে, জি ফাইভে ধারাবাহিকের এপিসোড আগেই চলে আসে। ‌সেখান থেকেই অনেকে প্রতি এপিসোড দেখে নিতেন। ‌যদিও ফ্যানবেস দেখলে‌অন্যান্য ধারাবাহিকের চেয়েও ‘মিলি’ অনেকটা এগিয়ে রয়েছে।

পর্দার নায়ক ‘অর্জুন’ তথা অনুভব কাঞ্জিলাল জোর গলায় বলেন, অনেকেই বলছেন প্রথম সিরিয়াল হিসেবে ‘মিলি’ করার সিদ্ধান্ত তার ঠিক ছিল কিনা। তবে নায়কের উত্তর, আবারও যদি মিলির মতো প্রজেক্ট আসে তবে অবশ্যই করবো। আর সিরিয়াল করলে যেন ‘মিলির’ মতোই মেগায় কাজ করার সুযোগ পাই। অপরদিকে খেয়ালীও নম্বরের খাতিরে এগিয়ে রেখেছে মিলিকে। তিনি বলেন, এই ধারাবাহিক অনেক চ্যালেঞ্জের মধ্যে দিয়ে গেছে।

আরও পড়ুনঃ এবার স্বস্তিকার সাথে জুটি বেঁধে ফিরছে পর্দার ডোডো দা! কোন চ্যানেলে আসছে এই মেগা?

সাক্ষাৎকারে অকপট পর্দার ‘মিলি’ খেয়ালী মন্ডল বলেন, “এমন অনেক দিন গেছে যেদিন আমরা ভেবেছি, কাল হয়তো আর শ্যুটিং হবে না। তবুও ফের ঘুরে দাঁড়িয়েছে মিলি। আর এই অফস্ক্রিন চ্যালেঞ্জগুলো আমাদের মধ্যেকার বন্ডিংকে আরও শক্ত করেছে।” ধারাবাহিকের শ্যুটিং শেষ হয়ে গেছে বলে এখনো মন খারাপ হচ্ছে না অনুভব খেয়ালীর।‌ খেয়ালী বলেন, “মনে হচ্ছে আমরা তিন‌ চার দিনের বিরতিতে আছি, আবার কদিন পর শ্যুটিং ফ্লোরে যাব।”

Back to top button