ছেলের ফুলসজ্জার খাটে মা থেকে দেওর বৌদি কেচ্ছা! আবার কটাক্ষের শিকার জি বাংলা ‘কার কাছে কই মনের কথা’! 

জি বাংলার (Zee Bangla) অন্যতম একটি জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘কার কাছে কই মনের কথা’ (Kar Kache Koi Moner Katha)। এই ধারাবাহিকের নায়িকার ভূমিকায় অভিনয় করছেন মানালি দে (Manali Dey)। মানালির চরিত্রের নাম ‘শিমুল’ (Shimul)

ধারাবাহিকের গল্প অনুযায়ী, পরাগের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের পরেও শাশুড়ি এবং মানসিক ভারসাম্যহীন ননদের দেখাশোনার জন্য শ্বশুরবাড়িতে থেকে যায় সে। এদিকে বাড়িতে তখন চলছে পরাগের দ্বিতীয় বিয়ের তোড়জোড়। এরমধ্যে পরাগকে বিষ দিয়ে খুনের চেষ্টার অভিযোগে জেলে যেতে হয়েছে শিমুলকে। তবে সমস্ত অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণ করে জামিন পেয়েছে শিমুল। তবে ফের বাড়ি ফিরেই পুতুলের বিয়ের আয়োজন শুরু করে দিয়েছে সে।

Kar Kache Koi Moner Kotha: বৌকে ছেড়ে ফুলশয্যায় মায়ের সাথে ছেলে, 'কার কাছে কই মনের কথা' দেখে ছিঃ ছিঃ করছে নেটপাড়া

ধারাবাহিক প্রেমিকরা অবগত, পুতুলের বিয়ের হতে চলেছে তার শিক্ষক তীর্থের সঙ্গে। পেশায় অভিনেতা তীর্থ। পুতুলকে নিজেই বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছে সে। কিন্তু তাদের বিয়েতে বাঁধ সাধছে তার বৌদি। বৌদির চরিত্রে অভিনয় করছেন অভিনেত্রী অঙ্কিতা পাল। কিন্তু দেওরের বিয়েতে বৌদি কেন বাধা দেবে? এ নিয়ে নেটমাধ্যমে শুরু হয়েছে জোড় চর্চা।

নেটিজেনদের একাংশের মত, দেওরকে আঁচলে বেঁধে রাখতে চাইছে বৌদি। সেই কারণেই দেওরকে বিয়ে দিতে চাইছে না। তবে গোটাটাই যে অনুমান নয়। কারণ ধারাবাহিকের গল্পে একটি দৃশ্যে দেখানো হয়েছে তীর্থের বৌদি এমন কিছু কথা বলেছে, যা থেকে ইঙ্গিত মেলে, দেওরের প্রতি তার অনুভূতি রয়েছে।

এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই সমাজমাধ্যমে শুরু হয়েছে জোর চর্চা। বাংলা ধারাবাহিকে এ ধরনের গল্প আকছার দেখানো হয়। নেটমাধ্যমে সে সব নিয়ে সমালোচনা, বিতর্কও কম হয় না। ‘কার কাছে কই মনের কথা’ ধারাবাহিকের কিছু পর্ব ও ঘটনা নিয়ে এর আগেও সমালোচনা হয়েছে। পরাগের ফুলশয্যার খাট থেকে শিমুলকে সরিয়ে পরাগের মা মধুবলার রাত্রিযাপনের দৃশ্য নিয়ে কম হইচই হয়নি। তবে এবার ফের সমালোচনার মুখে ‘কার কথা কই মনের কথা।’

Back to top button