পুঁটির ক্ষ’তি করতে দত্ত বাড়িতে হাজির ইশা, জন্মদিনের উপহারের মাধ্যমে চরম ক্ষ’তির সম্মুখীন পুঁটি!

Neem Phuler Modhu Today Episode: এতদিন বেশ কিছু বছর ধরে একটা ঝড় ঝঞ্ঝাট মুক্ত সুন্দর জীবন যাপন করছে জি বাংলার (Zee Bangla) নিম ফুলের মধু (Neem Phuler Modhu) ধারাবাহিকের নায়িকা পর্ণা এবং তার গোটা দত্ত পরিবার। কিন্তু খুব বেশিদিন এই সুখ সহ্য হবে না তার কপালে একথা ভালো করেই বুঝতে পেরেছিলেন দর্শক মহল। এই মুহূর্তে এই ধারাবাহিকটি টিআরপি তালিকায় নজরকাড়া জায়গা দখল করছে মাসের পর মাস। যত দিন যাচ্ছে ধারাবাহিকের নায়িকার অভিনয় মুগ্ধ হচ্ছে তার ভক্তরা।

বর্তমান গল্প অনুযায়ী, পর্ণা তার মেয়ে সৃপর্ণা এবং তার শশুরবাড়ি সবাই হই হুল্লোড় করে দিন কাটাচ্ছে। জেঠি পর্ণার মেয়ের নাম রেখেছে পুঁটি। এই পুঁটি আসার পর থেকে অনেকের অনেক উন্নতি হয়েছে। সৃজনের শাড়ির কথার আরো দুটো আউটলেট খোলা হয়েছে, একটা নতুন গাড়িও কিনেছে সে। শুধু তাই নয় চয়ন, পর্ণা এবং রুচিরা সবার প্রমোশন হয়েছে। সবাই এই মুহূর্তে ভীষণ খুশি।

নিম ফুলের মধু আজকের পর্ব ১৬ এপ্রিল (Neem Phuler Modhu Today Episode 16 April)

ধারাবাহিকের আজকের পর্বে দেখা যায়, অনেকক্ষণ ধরেই নিজের মেয়েকে খুঁজছে পর্ণা। কিন্তু তার মেয়ে লুকিয়ে লুকিয়ে নিজের ঠাকুমার পুজোর থালা থেকে মিষ্টি চুরি করে খেতে গিয়ে ধরা পড়েছে। এটা দেখে বেশ রেগে গেছে কৃষ্ণা। সে তাড়াতাড়ি করে পুঁটিকে ধরে ফেলে আর বলে এবার এক চড়ে তার দাঁত ফেলে দেবে। কিন্তু পুঁটি তার ঠাম্মাকে কাতুকুতু দিয়ে মাটিতে ফেলে দেয়। এসব দেখে পর্ণা বলে, ঠাম্মার কাছে ক্ষমা চাইতে।

এই নিয়ে সৃজনের কাছে এক দফা নালিশ করে কৃষ্ণা। তখন সৃজনের ঠাম্মা তাকে বলে, “আজ মেয়েটার জন্মদিন। তুমি যে ওকে পছন্দ করো না সেটা আমি জানি। কিন্তু জন্মদিনের দিন অন্তত মেয়েটাকে আর গালমন্দ করোনা।” তখন আর কৃষ্ণা কিছুই বলতে পারেনা। এরপর দেখা যায় সৃজন তার মেয়ের জন্য বড় একটা কেক নিয়ে এসেছে। সৃজনের ঠাম্মি পুঁটিকে বলে কেকটা কাটতে। ঠিক তখনই কলিং বেল বেজে ওঠে। দরজা খুলে পর্ণা দেখতে পারে সেখানে এসেছে ইশা আর রনি। তারা দুজন জেল থেকে ছাড়া পেয়ে গিয়েছে।

আরো পড়ুন:প্রথম সন্তানকে হারিয়ে ভেঙে পড়েছিলেন কাবো, সেই কষ্ট বুকে চেপে রেখেই এবার সুখবর! ঘরে আসছে নতুন সদস্য

সুজনের মেয়ের জন্মদিনে এসে ইশা পর্ণাকে বলে, “এতদিন জেলের মধ্যে প্রতিটা বছর আমি দগ্ধে দগ্ধে মরেছি। অনেক কষ্ট সহ্য করেছি তোর জন্য। এবার তোকে কষ্ট দেওয়ার পালা। তোকে আমি ছাড়বো না পর্ণা। তুই দেখবি ইশাকে কষ্ট দেওয়ার ফল। এখন তো তুই আর একা নস তোর একটা মেয়েও আছে। এবার তোর মেয়েকে আমার হাত থেকে কে বাঁচায় সেটাই দেখব।” এসব বলে সৃজনের মেয়েকে একটা উপহার দিয়ে সে সেখান থেকে চলে যায়। পর্ণা পুঁটিকে ওই উপহারটা খুলতে বারণ করে। কারণ সে ইশাকে মোটেই বিশ্বাস করে না। কিন্তু পুঁটির বাচ্চা মন কৌতূহলে ভরে ওঠে।

Back to top button