‘আমি তোমাকে খুব ভালোবাসি’, নেশার ঘোরে নীল ময়ূরী অ’ন্ত’র’ঙ্গ মুহূর্তে! ময়ূরীকে নিজের মনের কথা বলল নীল

জি বাংলার (Zee Bangla) জনপ্রিয় একটি ধারাবাহিক হল ‘ইচ্ছে পুতুল’ (icche Putul)। ধারাবাহিকটি দর্শকমনে ব্যাপক জায়গা করে নিয়েছে। আর কিছুদিনের মধ্যেই গল্পে আসতে চলেছে বড় ট্যুইস্ট। বর্তমানে মেঘ (Megh) ও নীল (Neel) বিচ্ছেদের পথে হাটছে। ময়ূরীর (Mayuri) কথা বিশ্বাস করে নীল মেঘকে ভুল বুঝে এসেছে। বারংবার নীলের কাছে অপমানিত হওয়ার পর মেঘ ঠিক করেছে এবার নীলকে ডিভোর্স দেবে।

ময়ূরীকে নীল বিয়ে করতে রাজি হলেও সে মেঘকেই ভালোবাসে। কিছুদিনের মধ্যেই নীলের সামনে সকল সত্যি আসতে চলেছে। গিনি বিয়ের পর এটা বুঝে গিয়েছে যে মেঘ যা বলেছিল সব সত্যি। মেঘ গিনির (Gini) বিয়ের আগেই বারংবার রূপের আসল চেহারা তুলে ধরেছিল। রূপ যে গিনিকে ভালোবাসে না শুধুই ব্যবহার করে ছেড়ে দেবে, তা নিয়ে মেঘ সকলকেই সচেতন করে।

নীলের পরিবারের কেউ মেঘের কথা বিশ্বাস করে না। রূপ তার বাবার সম্পত্তির লোভে মেঘকে বিয়ে করে। কিন্তু বিয়ের পরই রূপ তার আসল চেহারা গিনির সামনে প্রকাশ করে। গিনি বুঝে যায়, রূপ সত্যি একটা খারাপ ছেলে। রূপ তার উপর শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার করে। যদিও গিনি এখনও সকলকে কাউকে কিছু জানায়নি।

মেঘ যদিও গিনির সঙ্গে দেখা করে বুঝে গিয়েছে গিনি বিপদে আছে। আর এই মেঘই একদিন গিনিকে বাঁচাবে আমরা তাও জানি। ময়ূরী বর্তমানে একটু ভয়ে রয়েছে, কারণ সে বুঝতে পারছে খুব শীঘ্রই সব সত্যি ফাঁস হবে। আর তাহলেই মেঘ ও নীলের বিয়ে আটকে যাবে। তাই ময়ূরী বর্তমানে বিয়েটা তাড়াতাড়ি করে নেওয়ার মতলবে রয়েছে।

নীল এটাই ভেবে এসেছে জিষ্ণু মেঘের বয়ফ্রেন্ড, যদিও ময়ূরী এই কথা নীলের মাথায় ঢুকিয়েছে। কিন্তু মেঘ ও জিষ্ণু আসলে খুব ভালো বন্ধু। দেখা যায়, নীল মেঘের উপর রাগ করে মদ্যপান করে। আর তারপর ময়ূরীকে মেঘ ভেবে তার কাঁধে মাথা দিয়ে বলতে থাকে যে সে তাকে খুব ভালোবাসে। যা শুনে ময়ূরী খুব রেগে যায় ও বলে নীল এর ফল একদিন ভুগবে।

Back to top button