ফুলশয্যার রাতে গিনির ওপর চরম অত্যাচার রূপের! শেষে নিজের ভুল বুঝে চরম সিদ্ধান্ত তার!

জি বাংলার (Zee Bangla) একটি জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘ইচ্ছে পুতুল’ (Icche Putul)। বর্তমানে ধারাবাহিকে চলছে ধামাকাদার পর্ব। দর্শক অপেক্ষায় রয়েছে কবে সকলের সামনে রূপ (Roop) ও ময়ূরীর (Mayuri) আসল মুখোশ সামনে আসবে। ধারাবাহিকটি দিন দিন দর্শকদের বেশ পছন্দের হয়ে উঠেছে। যদিও পুজোর পরই এই মেগার ইতি টানার কথা শুনে মনখারাপ দর্শকদের। ভালোবেসে অন্ধ বিশ্বাস করে আজ গিনিকে নিজের ভুলের এতো বড় মাশুল বুনতে হবে, তা গিনি নিজেও কোনওদিন আন্দাজ করতে পারেনি।

কোনওকিছু না যাচাই করে গিনি (Gini) রূপকে বিয়ে করে নিজেই নিজের বিপদ ডেকে এনেছে। মেঘ (Megh) তাকে বহুবার রূপের আসল চরিত্রে কথা জানিয়ে সাবধান করেছে। কিন্তু গিনি মেঘকে প্রথম থেকেই অবিশ্বাস করে এসেছে। ময়ূরীকে ভালো বন্ধু ভেবে তার কথায় রূপকে বিয়ে করবে বলে ঠিক করে। গিনির জেদের বশে কেউ কোনও খোঁজ না নিয়েই তড়িঘড়ি গিনির সঙ্গে রূপের বিয়ে দিয়ে দেয়।

মেঘের কথা নীলও (Neel) বিশ্বাস করেনি। বরং ময়ূরীর কথার উপর নির্ভর করেই গিনির বিয়ে দেওয়া হয়। মেঘকে অবিশ্বাস করে নীল মেঘকে ডিভোর্স দিতে চলেছে। রূপ আসলে প্রথম থেকেই গিনিকে ব্যবহার করে ছেড়ে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু বাবার কথায় সম্পত্তির লোভে গিনিকে রূপ বিয়ে করতে বাধ্য হয়। রূপের বাবা ভেবেছিল, বিয়ের পর রূপ পাল্টে যাবে। তাই রূপের স্বভাব সকলের কাছে লুকিয়ে যায় তার বাবা।

বিয়ের পরদিন থেকেই রূপ তার আসল চেহারা প্রকাশ করতে থাকে গিনির সামনে। রূপ যে একটা লম্পট ছেলে, তাও গিনি বুঝতে পারে। পাড়া-প্রতিবেশী সকলেই রূপের ব্যাপারে নিন্দা করে। কিন্তু শাশুড়ির কথায় ও রূপের ক্ষমা চাওয়ার জন্য গিনি শ্বশুরবাড়ির কাউকেই কিছু বলার সাহস পায় না। বৌভাতের অনুষ্ঠানে গিনি জানতে পারে রূপের গার্লফ্রেন্ড রয়েছে, সে প্রতিরাতেই তার কাছে যায়। বিয়ের যে স্বপ্ন গিনি রূপকে নিয়ে দেখেছিল, তা একদিনেই ভেঙে চুরমার হয়ে যায়।

এবার এল সেই ভয়ানক ফুলশয্যার রাত, যার জন্যই এতদিন অপেক্ষায় ছিল রূপ। বিয়ে করে বৌয়ের উপর সবকিছু করার লাইসেন্স আছে, এটা ভেবে গিনির উপর শারীরিক নির্যাতন করে রূপ। মদ্যপ অবস্থায় জোর করে গিনির সঙ্গে মিলন স্থাপনের চেষ্টা করে রূপ। গিনি রূপের আসল চেহারা দেখে তার সাথে আর একমুহুর্ত থাকতে চায় না। গিনির সকল গহনা কেড়ে নেয় রূপ। রূপের হাত থেকে এবার গিনিকে কে বাঁচাবে?

Back to top button