“এই ইন্ডাস্ট্রিতে আমার কোন বন্ধু নেই”, এতদিন কাজ করার পরেও আক্ষেপের সুর শ্রীতমার গলায় কিন্তু কেন?

ইচ্ছেনদী’র অদ্রিজা, মা এর ঝিলিক, লালকুঠির বীথি এইসব নামেই তিনি জনপ্রিয়। তাঁকে মানুষ প্রথম দেখেন মা ধারাবাহিকে। তারপর তো রয়েছে আরও অনেক ধারাবাহিক। সুন্দর যেমন অভিনয়, তেমনই সুন্দরী তিনি। কখনও তিনি পজিটিভ চরিত্রে আবার কখনও সুন্দরী জাঁদরেল ভিলেন চরিত্রে। আবার তিনি রাজনীতিবিদ। একাধারে তাঁর হাজারও গুণ।

দর্শকরা যারা নিয়মিত ধারাবাহিকের সঙ্গে যুক্ত, তারা হয়তো এতক্ষণে বুঝে গেছেন কার কথা বলা হচ্ছে। তিনি হলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীতমা ভট্টাচার্য। একাধিক ধারাবাহিকে একাধিক চরিত্রে তাকে দেখেছেন দর্শক মহল। প্রতিটি চরিত্রেই সফলভাবে নিজের অভিনয়ের দক্ষতা প্রদর্শন করেছেন তিনি।

কিছুদিন আগেই তার একটি ধারাবাহিক সোহাগ জল শেষ হয়েছে। এই মুহূর্তে জি বাংলার অন্য একটি প্রজেক্ট কার কাছে কই মনের কথায় একটি মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে এই অভিনেত্রীকে। শুরুর দিন থেকেই অভিনয়ের জন্য দর্শকদের কাছে ভীষণ গ্রহণযোগ্যতা পাচ্ছেন শ্রীতমা। এমন চরিত্রে তিনি এর আগে কখনো অভিনয় করেননি। তাই বিষয়টা তার কাছে যথেষ্ট চ্যালেঞ্জিং।

এই দিন এক সংবাদ মাধ্যমের সাথে খোলাখুলি আড্ডায় মাখলেন অভিনেত্রী শ্রীতমা। তার অনেক অভিজ্ঞতাই ভাগ করে নিলেন দর্শকদের সাথে। তিনি বললেন জি বাংলায় পরপর তিনটি প্রজেক্ট এ নিয়ে তিনি কাজ করছেন। প্রথমটা লালকুঠি সেটা শেষ হতেই শুরু হল সোহাগ জল আর তারপর কার কাছে কই মনের কথা।

প্রতিটি ধারাবাহিকেই অসম্ভব আনন্দের সাথে অভিনয় করছেন তিনি। কথা প্রসঙ্গে তাকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল পুরনো টিমকে কতটা মিস করেন অভিনেত্রী? যার উত্তরে শ্রীতমা জানান সোহাগ জলের টিমকে বিশেষ করে তাদের মেকআপ রুমকে খুব মিস করেন তিনি। এতটা মজা আর অন্য কোথাও হয়নি। তিনি আরো বলেন ইন্ডাস্ট্রিতে তার কোন বন্ধু নেই। তার যে বন্ধুরা রয়েছে তারা প্রত্যেকেই এই ইন্ডাস্ট্রির বাইরে। কিন্তু তারপরেও খারাপ এবং ভালো দুটি দিককেই সমানতালে সাথে নিয়ে এগিয়ে চলছেন অভিনেত্রী।

Back to top button