পলাশ এবং পরাগের কোন কথাই না শুনে মুখের ওপর তাদের অন্যায়ের শাস্তি দিলেন ডিএম!

জি বাংলা (Zee Bangla) চ্যানেলে সম্প্রচারিত একটি অন্যতম জনপ্রিয় হচ্ছে কার কাছে কই মনের কথা (Kar kache koi moner kotha)। ধারাবাহিকের নায়িকা শিমুলের চরিত্রে রয়েছেন মানালি দে এবং নায়ক পরাগের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে দ্রোণ মুখোপাধ্যায়কে। এই ধারাবাহিকটি বর্তমানে টিআরপির প্রথম পাঁচে স্থান পেয়েছে।

এদিনের পর্বে দেখা যায় ডিস্টিক ম্যাজিস্ট্রেট -এর কাছে গিয়ে নিজের সমস্ত কথা খুলে বলে শিমুল। তার সব কথা শুনে সাহস করে তার কাছে আসার জন্য ডিএম বাহবা দেয় শিমুলকে। এরপর নানা কথাবার্তায় শিমুলের নাচের প্রসঙ্গ ওঠে। ডিএম তখন শিমুল এবং তার বাকি প্রতিবেশী বান্ধবীদের বলে তারা যদি ভালোভাবে পারফর্ম করতে পারে তাহলে ডি এম নিজে তাদের জন্য স্লট বার করে দেবে। এই শুনে খুব খুশি হয়ে যায় তারা।

এর পরের দিন ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেটের অফিস থেকে চিঠি আসে পরাগ এবং পলাশের জন্য। তারা বুঝতে পারে যে আগের দিন শিমুল যে নালিশ করে এসেছিল তার জন্যই তাদেরকে ডাকা হয়েছে। শিমুলের হয়ে কথা বলতে গেলে পুতুলকে মারধর করে পলাশ আর এই দেখে রেগে যায় মধুবালা।

এরপর মধুবালাকে ৩০ হাজার টাকা নেওয়ার জন্য কথা শোনায় পরাগ। এছাড়াও পরাগ বলে আগের দিন শিমুলের সাথে ঘুড়ি না উড়িয়ে তার চুলের মুঠি ধরে নামিয়ে আনা উচিত ছিল মধুবালার। এই শুনে মধুবালা পরাগের উপর চিৎকার করে ওঠে আর বলে “বেশ করেছে ঘুড়ি উড়িয়েছে। যা হচ্ছে সব তোদের জন্য হচ্ছে।”

ধারাবাহিকের আগামী পর্বে দেখা যাবে, পরাগ আর পলাশ দেখা করতে গিয়েছেন ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট -এর সাথে। সেখানে ডি এম তাদেরকে বলে, তারা যে কাজ করেছে তার জন্য তাদের বিরুদ্ধে ডোমেস্টিক ভায়োলেন্সের কেস হতে পারে। এই শুনে পরাগ বলে সে কিছুই করেনি তখন রেগে যান ডি এম।

Back to top button