দেবুকে বোকা বানিয়ে কাজ হাসিল করলো জ্যাস, বিজুর নাম শুনে ভয় পেয়ে গেল রাজনাথ! সত্যের মুখোমুখি জ্যাস!

সমস্ত প্রমাণ চলে এলো জগদ্ধাত্রীর হাতের মুঠোয়। এইবার শুধু জাল গোটানোর পালা। বহুদিন ধরে একটু একটু করে সবটা নিজের আয়ত্তে নিয়ে এসেছে জি বাংলার (Zee Bangla) জগদ্ধাত্রী (Jagaddhatri) ধারাবাহিকের নায়িকা জ্যাস সান্যাল। আর মাত্র কয়েকটা মুহূর্ত। এরপরেই সব সত্যিই চলে আসবে গোটা দুনিয়ার সামনে।

বর্তমানে ধারাবাহিকের গল্প অনুযায়ী, ইতিমধ্যেই সমস্ত তথ্য প্রমাণ জোগাড় করে ফেলেছে জগদ্ধাত্রী। আর কয়েকটা বিষয় নিশ্চিত হয়ে দিতে পারলেই সে তার অজ্ঞাতবাস ছেড়ে সবার সামনে এসে আসল দোষীর কলার ধরে তাকে জেলে ঢোকাতে সক্ষম হবে। আর সেটাই এবার করতে চলেছে জগদ্ধাত্রী।

ধারাবাহিকের আজকের পর্বে দেখা যায়, মুখার্জী বাড়িতে গিয়ে জগদ্ধাত্রীর শেষকৃত্য কেন সম্পন্ন করা হয়নি সেই নিয়ে বিচার চাই কাল বোস মামা। এর পাশাপাশি তিনি এটাও বলেন, সবাই যেভাবে অন্যায় করে চলেছে তাতে তাদের পাপের ঘরা পূর্ণ হল বলে। খুব তাড়াতাড়ি সবার পতন হবে। এই বলে সেখান থেকে চলে যায় কালবোস মামা। এর মাঝেই রাজনাথকে ফোন করে জানতে চাওয়া হয় সে বিজু বলে কাউকে চেনে কিনা। রাজনাথ তার উত্তরে জানায়, “সে বিজু বলে কাউকে চেনে না আর চিনতেও চায়না।”

বিজুকে মারধর করতে থাকে জগদ্ধাত্রী। মারতে মারতে তার পেটের ভেতর থেকে সমস্ত কথা বের করে আনে সে। জগদ্ধাত্রী জানতে পারে, এই সমস্ত প্ল্যানের পিছনে রয়েছে রাজনাথ। সে ১০ লক্ষ টাকা দিয়ে এই ডিলটা করেছে। কিন্তু শুধু তো মুখের কথায় হবে না। এর একটা প্রমাণ চাই আর এই প্রমাণ জোগাড় করতে কৌশিকীর সাহায্য নেয় জগদ্ধাত্রী। কৌশিকী সাথে সাথে রঘু দাকে ফোন করে ঐদিন রাজনাথের অ্যাকাউন্ট থেকে কোন টাকা তোলা হয়েছিল কিনা সেই খবরটা জানাতে বলে আর রঘুও সেই কাজে বেরিয়ে পড়ে।

আরো পড়ুন: “সেই আগুনেই তুই পুড়বি”- ইশার দিকে চ্যালেঞ্জ ছুড়লো পর্ণা! কৃষ্ণাকে উচিত শিক্ষা দিয়ে মুখ বন্ধ করল সে!

রঘুর ওপর সন্দেহ হয় দেবুর। সে রঘুকে ফলো করতে থাকে। রঘু সমস্ত তথ্য প্রমাণ যোগাড় করে সেই কথাটা কৌশিকীকে ফোন করে জানানোর কথা ভাবে। তখন দেবু এসে রঘুর মাথায় আঘাত করে তার থেকে ফাইলটা নিয়ে সেখান থেকে চলে যায়। আর এটা দেখে ফেলে জগদ্ধাত্রীর অনুচর। জগদ্ধাত্রী তখন ছদ্দবেশে দেবুকে ধাক্কা মেরে আসল ফাইলটা নিয়ে তার জায়গায় নকল ফাইল রেখে দেয়। আর ওই ফাইলটা রাজনাথের মারণ অস্ত্র হয়ে ওঠে।

Back to top button