“মদন মিত্রের সিনেমা করার ইচ্ছা ছিল আগের থেকেই, সেই ইচ্ছেতে নারা দিয়েছেন হরনাথ”- দেবযানী পুত্র ঋক…

পরিচালকের আসনে হরনাথ চক্রবর্তী। খরাজ মুখোপাধ্যায়, লাবনী সরকার, ঋক, রাজনন্দিনী পাল এবং মদন মিত্র- ‘ওহ! লাভলি’-র স্টারকাস্টও যে বেশ লাভলি এমনটাই মনে করছেন দর্শকরা। রাজনীতির (Politics) পাশাপাশি অভিনয়েও ছক্কা হাঁকালেন মদন মিত্র। জীবনের প্রথম সিনেমায় (Cinema) হিরো! কেমন অভিজ্ঞতা হল নায়ক ঋকের? সংবাদ মাধ্যমের সাথে খোলামেলা আড্ডায় দেবযানী পুত্র ঋক।

প্রথম ছবির অভিজ্ঞতা কেমন?

এই প্রশ্নের উত্তরে অভিনেতা জানালেন, “ছোট থেকেই এই লাইনেই আসতে চেয়েছিলাম। হরনাথ চক্রবর্তীর হাত ধরে এই সুযোগ পাই। কাজ করে বেশ ভালো লেগেছে। যত প্রমোশন বাড়ছে আর মানুষজনদের এই ছবিটির প্রতি আগ্রহ দেখছি তত আরো বেশি করে এই ভালো লাগাটা বেড়ে যাচ্ছে।”

ঋক কি রোমান্টিক?

অভিনেতা বললেন, “ব্যক্তিগত ঋক একেবারেই রোমান্টিক নয়। আর সেই জন্যই চরিত্রটা আমার কাছে বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিল। যেটা আমি নই ঠিক সেটাই ছবিতে ফুটিয়ে তুলতে হচ্ছিল আমায়। রোমান্টিক নই বলে প্রেম-ভালোবাসাও তেমন হয়নি। আর মা তো একেবারেই আশাহত আমার প্রতি। এক কথায় আমি একেবারে বোরিং একটা মানুষ যে বই সিনেমা এসব নিয়েই থাকতে ভালবাসি।”

কাজ দেখে মা কি বলল?

এই প্রশ্নের উত্তরে অভিনেতা বলেন, “আমার মা নিজের ইমোশন গুলোকে সেভাবে প্রকাশ করে না সেটা রাগ হোক বা দুঃখ বা আনন্দ। উনি আমাকে আমার মত করে ছেড়ে দিয়েছেন। তবে হ্যাঁ সিনেমাটা দেখার পর যদি বলেন ভালো হয়েছে তাহলে তো অবশ্যই ভালো লাগবে।”

মদন মিত্রের সাথে কাজ করে কেমন লাগলো?

অভিনেতা জানান, “উনি বেশ সিরিয়াস ভাবে অভিনয়টা করেছেন। ওনার সঙ্গে এটাই আমার প্রথম কাজ আর ওনারও এটাই প্রথম কাজ। প্রত্যেকদিন উনি স্ক্রিপ্ট মুখস্ত করে আসতেন। মদন মিত্রের মনে অভিনয় করার একটা সুপ্ত ইচ্ছা ছিল আর সেই ইচ্ছাতেই নাড়া দিয়েছেন হরনাথ চক্রবর্তী। বেশ ভালো লাগলো একসাথে কাজ করে।”

Back to top button