মালিনী আর তুলির চক্রান্ত ভেস্তে কাছাকাছি এলো তিতির সোমরাজ

সব মান অভিমান ভুলে কাছাকাছি এলো তিতির সোমরাজ, অন্যদিকে প্রায় ধরা পড়ে গেল তুলি

এই মুহূর্তে জি বাংলার (Zee Bangla) পর্দায় সম্প্রচারিত একটি অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক হচ্ছে মন দিতে চাই (Mon dite chai)। ধারাবাহিকটি শুরু হওয়ার পর থেকেই বেশ নজর কেড়েছিল দর্শকদের। ধারাবাহিকের নায়ককে নির্দোষ প্রমাণ করতে নিজেই বিপদের মুখে ঝাঁপ দেয় নায়িকা তিতির। সোজা মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যায় সে। তবে সেখান থেকে নিজের বুদ্ধিমত্তা এবং সোমরাজের সেবা-শুশ্রষা তাকে আবার সুস্থ করে তোলে।

এখন তাদের মধ্যে সমস্ত নিজস্ব ঝগড়া ঝামেলার ইতি ঘটেছে। এখন তারা একসাথে জোট বেঁধে চেষ্টা করছে তুলিকে ফাঁদে ফেলার। ঠিক কিভাবে এবং কি করলে তুলি সব সত্যিটা স্বীকার করবে, তারই চেষ্টায় রয়েছে তারা। তবে এর মাঝে তাদের প্ল্যানের অংশ হিসেবে ইতিমধ্যেই তুলিকে সুইজারল্যান্ড যাওয়ার অফার দিয়েছে সোমরাজ।

এই সমস্ত প্ল্যান পরিকল্পনা করতে করতে অনেক রাত হয়ে যাওয়ায় তিতির নিজের ঘরে চলে যেতে চাইলে সোমরাজ তিতিরকে তার সাথেই থেকে যেতে বলে। সে তিতিরকে বলে তার শরীরটা ভালো নেই রাতে সমস্যা হলে কেউ পাশে থাকবে না। এই কথা শুনে সেখানেই থেকে যায় তিতির। এরপর তিতির ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে স্বপ্ন দেখতে থাকে সে সোমরাজের অনেক কাছাকাছি আসতে পেরেছে। তারা একে অপরকে অনেক ভালোবাসছে।

রাখি পূর্ণিমায় রাখি পরতে তিতিরের বাড়িতে আসে তুহিন। বোনদের রাখি পরিয়ে চলে যাওয়ার সময় তুহিন দুঃখ করে বলে তুলি তাকে রাখি পরালো না। টাকার লোভে মানুষ এতটা পর হয়ে যেতে পারে সেটা সে ভাবতেই পারেনি। যাওয়ার আগে তিতিরের হাতে একটা সাদা কাগজে পুরিয়া দিয়ে যায় তার দাদা তুহিন।

পরের দিন সকালে উঠে মালিনীকে ঘর থেকে সরানোর জন্য ইচ্ছে করেই ঠাম্মিকে দিয়ে অন্নপূর্ণা পাইস হোটেলের নাম তোলে তিতির। আর সেই সন্দেহ নিবারণের জন্য তিতিরের প্ল্যান অনুযায়ী ঘর থেকে বেরিয়ে যায় মালিনী। এইবার তুলি একেবারে একা। তিতির তুলির জন্য বানানো খাবারে পুরিয়া মিশিয়ে দেয় আর তুলিকে সেই খাবার খেতে দেয়।

খাবারটা খাওয়ার পর বমি করতে থাকে তুলি। তখন সোমরাজ এসে বলে তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যেতে হবে। তাই বাড়িতেই ডাক্তার ডাকার কথা বলে সোমরাজ। এই কথা শুনে তুলি ভয় পেয়ে যায় আর মালিনীর ঠিক করা সেই সাজানো ডাক্তারকেই সে ডাকবে এমনটাই জানায় সোমরাজকে। আর এখানেই সাকসেসফুল হয় তিতির। মালিনীর প্ল্যান অনুযায়ী ডাক্তারের চেম্বারে গিয়েছিল তিতির আর এইবার সেই ডাক্তার নিজে আসবে তিতিরের কাছে। জয়ের দিকে আরও একধাপ এগিয়ে গেল তিতির।

Back to top button