ফ্লপ ‘ইচ্ছে পুতুল’কে হিট করতে ভিলেন ‘মিঠাই’য়ের নায়ক, পজেটিভ থেকে সোজা নেগেটিভ! এমন চরিত্রে অভিনেতার কামব্যাকে খুশি নয় ভক্তরা

বর্তমানে জি বাংলার একটি চর্চিত এবং অন্যতম ধারাবাহিক হচ্ছে ইচ্ছে পুতুল। প্রথমে বেশ সমালোচনার শিকার হতে হয় এই ধারাবাহিককে কিন্তু পরবর্তীতে ধারাবাহিকের আকর্ষণীয় প্লট দর্শকদের কাছে এই মেগাকে বেশ জনপ্রিয় করে তোলে। দুই বোনের গল্প নিয়ে ধারাবাহিককে আবর্তিত হয়েছে।

সম্প্রতি মেঘের জীবনে ঘটে গেছে অনেক বড় ঘটনা। নীল এবং মেঘের হানিমুন যাওয়ার প্ল্যানটা ভেস্তে দেয় ময়ূরী। যাওয়ার দিন কায়দা করে পাসপোর্টটা লুকিয়ে রেখে দেয় ময়ূরী। মাঝপথে গিয়ে পাসপোর্ট না পাওয়াই ফিরে আসতে হয় তাদের আর এই ভাবেই অনেকগুলো আর্থিক ক্ষতির সঙ্গে সঙ্গে মেঘ আর নীলের সম্পর্কেও অনেকখানি চির ধরে।

সমস্ত বাড়ির লোক এই সব ক্ষতির জন্য দায়ী করে মেঘকে। প্রত্যেকদিন কোন ঠাসা হতে হতে শেষ পর্যন্ত ঘুরে দাঁড়ায় মেঘ। সে পুলিশের দ্বারস্থ হয়। পুলিশ এসে সবার ফিঙ্গারপ্রিন্ট নেয় আর সেখানে প্রমাণ হয়ে যায় পাসপোর্টে হাত দিয়েছিল ময়ূরী। যদিও বাড়ির অনেকেই এই কথা বিশ্বাস করে না সেই মেঘকেই দোষী ভাবে। কিন্তু মেঘের তাতে যায় আসে না যাদেরকে যা প্রমাণ করার মেঘ করে দিয়েছে।

এসবের মাঝে ধারাবাহিকের নতুন প্রোমো ভিডিও প্রকাশ পায়। যা দেখে চোখ কপালে উঠল দর্শকদের। এইবার মিঠাই ধারাবাহিকের নায়ক ভিলেন হিসেবে পা রাখল ইচ্ছে পুতুল সিরিয়ালে! প্রোমোতে দেখানো হয় একটি ছবি মাকে দেখাচ্ছিলো গিনি। ছবিটি দেখে মেঘের শাশুড়ি বলে বাহ ছেলেটা তো বেশ হ্যান্ডসাম একদিন তোর বয়ফ্রেন্ডকে বাড়িতে নিয়ে আয়। এরপর ছবিটা নিয়ে হাতাহাতি করতে গিয়ে মাটিতে পড়ে যায় সেটি আর মেঘ এসে ছবিটি মাটি থেকে তোলে।

ছবিটি দেখে সে বলে ওঠে রূপের ছবি তোমার কাছে কি করছে। তখন গিনি বলে আমি ওকে ভালোবাসি। যা শুনে চমকে যায় মেঘ আর মনে মনে বলে এই চরম সর্বনাশ থেকে গিনিকে বাঁচাতেই হবে। এরপর দেখা যায় চা দিতে রূপের ঘরে ঢুকছে মেঘ, তখন রুপ বলে সেই তো আমার কাছে আসতে হলো মেঘ। মেঘ চলে যেতে চাইলে তার হাত ধরে সে আর প্রতিক্রিয়া স্বরূপ একটা চড় মেরে দেয় মেঘ আর বলে গিনির সামনে আমি তোমার আসল চেহারা ঠিক বের করে আনবো। এই রূপের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে মিঠাই ধারাবাহিকের অন্যতম একজন নায়ক ফাহিমকে।

Bengali serial

মিঠাই এরপর ইচ্ছে পুতুলের নেগেটিভ চরিত্রে প্রবেশ করল পর্দার রুদ্র অর্থাৎ ফাহিম মীর্জা।

Back to top button