মাঠানের মত শাশুড়ি বলেই সন্ধ্যার মধ্যেকার প্রাণবন্ত স্বত্ত্বাটাকে বার করতে পারলেন তিনি, এবার জমবে সন্ধ্যাতারা বলছে দর্শকমহল

বর্তমানে স্টার জলসার (Star jalsha) জনপ্রিয় ধারাবাহিক সন্ধ্যা তারা (Sandhya Tara)। এই ধারাবাহিকে দেখানো হচ্ছে যে তিন বোনের মধ্যে মেজো বোন হলো সন্ধ্যা। সে বাড়ির জন্য সব সময় অনেক বেশি আত্মত্যাগ করে এসেছে। সন্ধ্যা চাই তার ছোট বোন তারা যাতে কলেজে পড়তে পারে।

তার বাড়িতে তার বড় দিদি এবং ভাইয়ের যাতে অন্ন সংস্থান হয়, এই কারণে মেয়ে হয়েও সেদিন রাত মাঠে লাঙ্গল চষে, ধান ফলায়, সে একজন চাষী। নিজের পরিবারের কথা ভাবতে ভাবতে সে নিজের সুখের কথা ভুলে যায়, নিজের অনেক বিয়ের সম্বন্ধ‌ই সে নিজে ফোন করে ভেঙে দিয়েছে কারণ সে বিয়ের পিঁড়িতে বসলে তার পরিবারের ভরণপোষণ কে করবে এই ভেবে!

কিন্তু অবশেষে সন্ধ্যার বিয়ে ঠিক হয়। তবে ভাগ্যের পরিহাসে সে এমন একজনকে পছন্দ করে বসে যাকে তার বোন তারা ভালোবাসে। কিন্তু সন্ধ্যার মত তারাও নিজের দিদিকে ভীষণ ভালোবাসে। নিজের দিদির এতটুকুনিও কষ্ট সহ্য করতে পারে না সে। তাই দিদির ভালো থাকার কথা ভেবে তার ভালোবাসাকে মুহূর্তের মধ্যে বিসর্জন দিয়ে দেয় তারা।

আকাশনীলের সঙ্গে বিয়ে হয়ে যায় সন্ধ্যার। তবে সন্ধ্যার বিয়ের আগের জীবন এবং বিয়ের পরের জীবনের মধ্যে আকাশ পাতাল তফাত খুঁজে পাচ্ছেন দর্শকরা। বিয়ের পর সন্ধ্যা চরিত্রটিতে অনেক বদল এসেছে। আগের চেয়ে অনেক বেশি প্রাণবন্ত হয়ে উঠেছে সে। আর এই ছটফটে অন্বেষাকেই তো এতদিন ধরে খুঁজছিলেন তার ভক্তরা।

ধারাবাহিকের আগামী পর্বে দেখা যাবে বিয়ে উপলক্ষে সবাই ভীষণ খুশি। সবাই খুশি না হলেও সন্ধ্যার শাশুড়ি মা সন্ধ্যাকে পেয়ে খুবই আনন্দিত। সন্ধ্যার শাশুড়ি মা সন্ধ্যাকে সমস্ত আনন্দ উজাড় করে মন খুলে নাচতে বলেন। শুধু তাই নয় তিনি নিজেও নাচেন। কিন্তু সন্ধ্যা তো নাচতে পারে না, সবাইকে নাচতে দেখে তার ভারী সাধ হলো নাচার। সুর তাল লয় সব ঘেঁটে মন খুলে নাচলো সন্ধ্যা। এই সবকিছুর মধ্যে দিয়ে এতদিনের জমে থাকা অসুখগুলো দূর হয়ে সুখের সঞ্চার হল সন্ধ্যার মনে।

Back to top button