লাবণ্য হল নেগেটিভ আর রত্না হল পজেটিভ! লাবণ্যকে বলা রত্নার কড়া কথা পুরোপুরি সমর্থন করছে দর্শক!

উচিত কথা কথা মুখের ওপর বলার জন্য রত্না চরিত্রটিকে বেশ পছন্দ করছেন দর্শক মহল

স্টার জলসা (Star jalsha) চ্যানেলে যে সমস্ত ধারাবাহিক সম্প্রচারিত হচ্ছে তার মধ্যে সবচেয়ে সেরা ধারাবাহিকটি হল অনুরাগের ছোঁয়া (Anurager chowa)। বর্তমানে এই ধারাবাহিকের টিআরপি অনেকটা পড়ে গিয়েছে। নায়কের ভূমিকায় অভিনয় করছেন দিব্যজ্যোতি দত্ত এবং নায়িকা হিসেবে রয়েছেন স্বস্তিকা ঘোষ ও ধারাবাহিকের প্রধান ভিলেনের চরিত্রে রয়েছেন অহনা দত্ত। সূর্য দীপাকে আলাদা করে দিল লাবণ্য।

ধারাবাহিক এই দিনের পর্বে দেখা যায়, মিশকার এক অভিভাবক এসে লাবণ্যকে বলে, যদি দীপা এই বাড়িতে থাকে তাহলে সে মিশকা আর তার সন্তানকে নিয়ে চলে যাবে। নিজের নাতিকে হারিয়ে ফেলার ভয়ে সূর্য আর দীপাকে আলাদা হয়ে যেতে বলতে এতটুকুনিও দ্বিধাবোধ করলেন না লাবণ্য।

মিশকা, যে অসৎ পদ্ধতিতে মা হয়েছে তার সন্তানের জন্য যে মেয়েটা এতদিন এই পরিবারটাকে এত কিছু দিয়ে এসেছে সেই মেয়েটার সাথে নিজের ছেলের বিচ্ছেদ করিয়ে দিতে দুবার ভাবলেন না লাবণ্য। যেহেতু বাড়ির কেউ তার কথার উপর সেভাবে কিছু বলে না তাই তাকে তেমন করে কিছুই শুনতে হয়নি। তবে রত্না দেবী অর্থাৎ দীপার সৎ মা মুখের ওপর আসল কথাটা বলে মন জিতে নিল দর্শকদের।

রত্না দেবী এসে লাবণ্যকে বলে, এখন তার নাতি হয়েছে তাই নাতির জন্য লাবণ্য সব করতে পারে। এই কথাটা যে কত বড় সত্যি সেটা প্রতিটি দর্শকই মনে মনে জানেন। বংশের প্রদীপের জন্য দীপার মতন একজন পুত্রবধূ এবং তার দুই ফুটফুটে সন্তানকে চলে যেতে বলে দিলেন লাবণ্য।

এমন অবস্থায় দীপার পাশে এসে দাঁড়ালো তার সৎ মা। তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন দীপা আর কখনো এই বাড়িতে ফিরবে না। আর ফেরার প্রশ্নই বা উঠছে কোথা থেকে? একবার যখন বিচ্ছেদ হয়ে গেল তখন পরিস্থিতি আর কোনদিনও এমন হবে না বা মিশকা হতে দেবে না যাতে করে দীপা আবার ফিরে আসতে পারে এটা হয়তো মনে মনে সবাই জানে। তবে সেটা স্পষ্ট করে বললেন রত্না দেবী। তিনি জানিয়ে দিলেন আর কোনদিনও এই বাড়িতে ফিরবে না দীপা। তাকে খাওয়ানো পড়ানোর ক্ষমতা তাদের আছে। দীপার এমন একটা সময়ে রত্না দেবীর এভাবে পাশে এসে দাঁড়ানোটা রত্না দেবীকে বেশ জনপ্রিয় করে তুলেছে দর্শকমহলে।

Back to top button