দীপাকে শত অপমানের পরেও দীপার জন্যই সোনাকে ফিরে পেল সূর্য, এতো কিছুর পরেও মিশকার কথায় ভুলবে সে!

এখন স্টার জলসার সবচেয়ে জনপ্রিয় ধারাবাহিকটি হলো অনুরাগের ছোঁয়া। ধারাবাহিকটি শুরু থেকেই ছেয়ে গিয়েছে দর্শকদের মাঝে। প্রায় প্রতি সপ্তাহেই টিআরপি তালিকার শীর্ষে দেখা মেলে এই ধারাবাহিকের। এই মেগার নায়ক এবং নায়িকার অভিনয়, তাদের প্রেম, বিচ্ছেদ, মান অভিমান প্রতিটি জিনিসই মন ছুয়ে গেছে দর্শকদের। বর্তমানে ধারাবাহিকের গল্প আবর্তিত হচ্ছে সূর্য আর দীপার দুই যমজ সন্তান সোনা এবং রুপাকে নিয়ে।

বর্তমানে ধারাবাহিকের নায়ক এবং নায়িকার মধ্যে কোন কিছুই আর স্বাভাবিক নেই। সূর্য আর তার স্ত্রীকে আগের মতন ফিরিয়ে নিতে পারে না। দীপাকে একপ্রকার ঘেন্না করে সূর্য। সূর্যের মতে দীপা তাকে ঠকিয়েছে। কিন্তু এটা যে সত্যি নয় সেটা কিছুতেই প্রমাণ করতে পারে না দীপা। তাদের দুজনের মাঝে পড়ে একটা অস্বাস্থ্যকর জীবন যাপন করছে তাদের দুই সন্তান সোনা এবং রুপা।

সম্প্রতি দীপার সৎ মা রত্না দেবীর কুবুদ্ধিতে প্রচন্ড আঘাত পায় সোনা। রত্ন দেবীর বলা কথাগুলো সোনা এমন ভাবে নিজের মনে বসিয়ে নেয় যে, সূর্যকে আর বাবা বলে মানতে পারে না কিছুতেই। আর এতে ভীষণ রকম কষ্ট পায় সূর্য। এই সবকিছুর মাঝেও সোনার ভুল ধারণার জন্য এবং যা যা ঘটে চলেছে সবকিছুর জন্যই দীপাকে দোষী সাব্যস্ত করতে চায় সূর্য। দীপা অস্বীকার করলে জোড় গলায় দীপাকে বারবার দোষী বলে সে।

সমস্ত অপমান সহ্য করেও দীপা সোনাকে বুঝিয়ে দেয় যে সোনার জীবনে তার বাবার অবদান ঠিক কতটা। সোনাকে দীপা খুব কঠোরভাবে বোঝায় যে বাবা তাকে ছোট থেকে আগলে রেখেছে ভালোবেসেছে কখনো কোন কিছুর অভাব হতে দেয়নি সেই বাবাকে আজ এতটা কষ্ট দিয়ে মোটেই ভালো কাজ করছে না সে। দীপার কথাগুলো মন দিয়ে ভাবে সে, ফুলমার কথায় হুঁশ পেড়ে সোনার।

তারপর সোনা একটু ধাতস্থ হয় এবং বুঝতে পারে সে যেগুলো ঘটিয়ে চলেছে সেগুলো হয়তো ভুল করছে সে। আজ দীপা না থাকলে সোনাকে শান্ত করা যেত না। সোনার বলা কথাগুলোতে আরো ক্ষতবিক্ষত হতো সূর্য। দীপাকে চরম অপমান করলেও দীপা কখনোই সূর্যকে কষ্ট পেতে দেখতে পারে না। তাই সূর্য যাই করুক না কেন তাকে কষ্ট পেতে দেখে এগিয়ে এসেছে দীপা। আর তারপর সোনার সঙ্গে কথা বলে সূর্যের কোলে ফিরিয়ে দিয়েছে সোনাকে।

Back to top button