“আমি এখনো শালিনীর প্রতি কমিটেড”- সবটা মিথ্যে! এতো কাছে এসেও স্যারকে নিজের করে পেলোনা ফুলকি!  

বর্তমানে জি বাংলায় (Zee Bangla) সম্প্রচারিত ‘ফুলকি’ (Phulki) ধারাবাহিকটি দর্শকদের খুব প্রিয় হয়ে উঠেছে। এই ধারাবাহিকের নবাগত নায়িকার অভিনয় মন কেড়ে নিয়েছে ভক্তদের। নায়িকা ফুলকির প্রতি বেশ সহানুভূতিশীল হয়ে উঠেছে দর্শকমহল। সেই প্রথম থেকে নায়ক রোহিতকে ভালোবেসে অনেক কিছু করেছেন সে। কিন্তু প্রত্যেকবার তার কপালে জুটেছে অবিশ্বাস। শেষ বারেও তার অন্যথা হয়নি।

বর্তমানে এই ধারাবাহিকের গল্প অনুযায়ী, রুদ্রর কথা শুনে ফুলকিকে ভুল বুঝে অনেক বড় সর্বনাশ ঘটিয়ে ফেলেছিল রোহিত। কিন্তু পরে সে বুঝতে পারে ফুলকি ঠিক কেমন মেয়ে। যে কোনো সময় আবার রোহিত ফুলকিকে একইভাবে ভুল বুঝতে পারে সেই নিয়ে দর্শকদের মনে কোন দ্বিমত নেই। এই মুহূর্তে রোহিত নিজের করা ভুলগুলোর জন্য অনুতপ্ত। তাই সে একটি পার্টির ব্যবস্থা করে আর সেখানে ফুলকিকে উপহার দেয়। ফুলকির সাথে নাচ করে গান গেয়ে একটা গোটা সুন্দর সন্ধ্যা ফুলকির জন্য অতিবাহিত করে।

ধারাবাহিকের আজকের পর্বে দেখা যায়, হঠাৎ করে রুদ্র আর ঈশিতাকে কোথাও দেখতে না পেয়ে সবাই খোঁজাখুঁজি শুরু করে দেয়। কিছুক্ষণ পর সেখানে ঢোকে ঈশিতা। সে তার শাশুড়ি মা কে বলে, “তমালকে বলে দিও, ও যেন আর কখনো এই সমস্ত সস্তার উপহার দিয়ে আমায় ইরিটেড না করে। ওইখানে আমি আংটিটা ফেলে দিয়েছি ওটা তুলে নিতে বলো।” পিছন থেকে সবটাই শুনতে পায় তমাল। মনটা ভেঙ্গে চৌচির হয়ে যায় তার। ফুলটি এসে তমালকে এটা ওটা বলে বোঝানোর চেষ্টা করলে তমাল বলে, এই রাতটা ফুলকির ভালো থাকার আনন্দ করার রাত। ফুলকি যেনো মন খারাপ না করে।

এরপর হঠাৎ করেই ফুলকি খেয়াল করে অনেকক্ষণ ধরে রোহিত কোথাও নেই। সে ঘরে যায় রোহিতকে ডাকতে। এদিকে রোহিত মনে মনে ভাবতে থাকে, আজ বাড়াবাড়ি করে ফেলেছে সে। এবার যদি ফুলকি মনে মনে অনেক কিছু আশা করে বসে তখন? সে তো ফুলকিকে কখনোই স্ত্রীয়ের মর্যাদা দিতে পারবে না কারণ সে এখনো শালিনীর প্রতি কমিটেড। ভাবতে ভাবতে হঠাৎ করেই দরজার বাইরে ফুলকি ডেকে ওঠে। রোহিত যে কিছু খায়নি এটা লক্ষ্য করেছে ফুলকি। দরজা না খোলায় বারান্দা দিয়ে চলে আসে ফুলকি। স্যারের জন্য খাবার আনি সে।

এরপর কথায় কথায় রুদ্রর কথা তোলে ফুলকি। কিন্তু রোহিত সেই বিষয়টা পুরোপুরি এড়িয়ে যায়। ফুলকির কথায় তেমন কর্ম পথ করে না, তাই ফুলকিও ভীষণ রেগে গিয়ে পারমিতার কাছে চলে যায় মাথায় তেল মাখাবে বলে। আর তারপর রহিতের সঙ্গে রীতিমতো মারপিট শুরু হয়ে যায় ফুলকির। এই গোটা বিষয়টাতে তাদের দুজনের মধ্যে ভালোবাসা স্পষ্ট চোখে পড়ছিল দর্শকদের। অন্যদিকে রুদ্র শালিনীকে বোঝাতে থাকে, এইভাবে হেরে গেলে চলবে না। কিছুদিন যাক বিষয়টা একটু ঠান্ডা হোক তারপর আবার চেষ্টা করতে হবে।

Back to top button