ঠেলায় পড়ে নীলের সামনে রূপ এবং নিজের সব দোষ স্বীকার করলো ময়ূরী!

রইল আজকের জমজমাট পর্ব, সত্যি না বললে রক্ত দেবে না মেঘ, তাই নীলের কাছে সব স্বীকার করলো ময়ূরী

বর্তমানে জি বাংলা (Zee Bangla) চ্যানেলের একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় এবং চর্চিত ধারাবাহিক হচ্ছে ইচ্ছে পুতুল (Ichhe Putul)। শুরুতে সমালোচনার শিকার হলেও পরবর্তীকালে নিজেকে অনন্য বলে প্রমাণ করেছে এই ধারাবাহিক (Bengali television)। ধারাবাহিকের প্রধান আকর্ষণ হলো মেঘ অর্থাৎ ধারাবাহিকের নায়িকা। এই মেঘের আত্মসম্মান নিয়ে সমাজের টিকে থাকার কাহিনীকেই বর্ণনা করা হয়েছে ধারাবাহিকে।

প্রথম থেকেই মেঘের নামে যা নয় তাই বলে নীলের কানে বিষ ঢালছিল ময়ূরী। কিন্তু এইবার নিজের কর্মকাণ্ডের জন্যই পস্তাতে হচ্ছে তাকে। ময়ূরী নীলের মাথায় ভালো করে ঢুকিয়ে দেয় যে মেঘ মেল পার্টনার ছাড়া থাকতে পারেনা তাই নীলের পর সে জিষ্ণুর মাথা খাচ্ছে। জিষ্ণুর সাথে প্রয়োজনের বেশি মেলামেশা করছে সময় কাটাচ্ছে। এসব শুনে ভীষণ রেগে যায় নীল।

এরপর নীল বলে, সে মেঘের সাথে থাকবে না আর তার পাশাপাশি মেঘকেও ভালো থাকতে দেবে না। এত তাড়াতাড়ি মেঘকে মুক্তি দেবে না নীল। সে কনটেস্ট করবে আর নীলের মুখে এই কথা শুনে ভয় পেয়ে যায় ময়ূরী। সে ভাবতে থাকে এসব করলে ডিভোর্সের প্রসেসটা অনেক বেশি দীর্ঘ হয়ে যাবে। ময়ূরী নীলকে বোঝানোর চেষ্টা করলেও নীল সেটা বুঝতে চায়না। অন্যদিকে এত চাপ সহ্য করতে না পেরে অসুস্থ হয়ে পড়ে ময়ূরী।

এত দিনের খাটাখাটনি তার উপরে নীলের মেঘকে ডিভোর্স না দেওয়ার সিদ্ধান্ত এসব কিছু ময়ূরীকে আরো অনেক বেশি অসুস্থ করে তোলে। বিছানায় শুয়ে শুয়ে ময়ূরী নিজের বাবাকে বলতে থাকে সে মরতে চায় না তাকে যেন তাড়াতাড়ি সুস্থ করে দেওয়া হয়। হঠাৎ করেই নীলকে দেখতে চায় ময়ূরী। নীল না এলে সে হসপিটালে যাবে না এমনটাই জেদ করতে থাকে সে।

সেই জন্য মেঘ নীলকে ফোন করে তাদের বাড়িতে ডাকে। অন্যদিকে সবার সামনে অর্থাৎ বাবা-মায়ের সামনে মেঘ ময়ূরীকে বলে সে একটা শর্তেই ময়ূরীকে রক্ত দেবে। নীলের সামনে ময়ূরীকে তার সমস্ত দোষ শিকার করতে হবে। রূপঙ্কর সান্যাল ভালো লোক নয়, এই কথা তাকে জানাতে হবে। এছাড়া মেঘ এবং রূপঙ্করের মধ্যে যে কিছু নেই, এটাও নীলকে জানাতে হবে। এইসব শুনে ভীষণ ভয় পেয়ে যায় ময়ূরী। তবে কি নিজের প্রাণ বাঁচাতেই সব সত্যিটা স্বীকার করবে ময়ূরী?

Back to top button