ঠেলায় পড়লে বেড়ালও গাছে ওঠে, তা কৃষ্ণাকে দেখলে বোঝা যায়! এখন পর্ণার দরকার পড়তেই ছেলে বউয়ের মিল করাচ্ছে সে

বর্তমানে জি বাংলার (Zee Bangla) পর্দায় যে সমস্ত ধারাবাহিক রমরমিয়ে চলছে তার মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক হলো নিম ফুলের মধু (Neem Phuler Modhu)। সাধারণ ফ্যামিলি ড্রামা নিয়েই তৈরি হয়েছে ধারাবাহিকের প্লট। এই ধারাবাহিকটি প্রধানত নায়িকার নিজের শ্বশুরবাড়িতে নিজেকে মানিয়ে নেওয়ার গল্প নিয়েই তৈরি। এই ধারাবাহিকের নায়িকা হল জনপ্রিয় অভিনেত্রী পল্লবী শর্মা।

বর্তমানে শাড়ির কথা নিয়ে ব্যস্ত সৃজন আর তাকে সাহায্য করতে সব সময় পাশে আছে পর্ণা। একটা বড় ডিল হাতে পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে তাতে সম্মতি জানিয়ে দেয় পর্ণা সৃজনকে জিজ্ঞাসা করে সেই সময়টুকুনি ব্যয় করতে চায়নি সে। আর এটা দেখেই পর্ণাকে যা নয় তাই বলে অপমান করে সৃজন। কিন্তু সৃজনের মা ঠিকই বুঝতে পারে যে এই ডিলটা ফাইনাল হলে শাড়ির কথা ব্যবসার কত উন্নতি হবে।

অপমানিত হয়ে পর্ণা ঠিক করে যে, সে আর ব্যবসার কোন কাজে থাকবে না কিন্তু সেই না থাকলে ডিজাইন আঁকবে কে? বিপদ বুঝে কৃষ্ণা পর্ণার কাছে এসে তাকে বোঝানোর চেষ্টা করলে সে স্পষ্ট জানিয়ে দেয় সে আর এই ব্যবসার কোন কাজে থাকতে পারবে না।

এরপর বাড়ির সবার কাছে এসে কৃষ্ণা পর্ণার মতামত জানিয়ে সেই নিয়ে চোটপাট করলে কৃষ্ণার শাশুড়ি এবং স্বামী তাকে বলে অনেক অপমান সহ্য করেছে মেয়েটা যদি ওকে দিয়ে কাজ করাতে হয় তাহলে আগে ওর কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। নিজের লাভ ভালো করেই বোঝে কৃষ্ণা তাই সে তার বৌমার কাছে ক্ষমা চায় কিন্তু পর্ণা তাকে জানায় কৃষ্ণার ক্ষমা নিয়ে তার কিছু যায় আসে না যদি সৃজন তার কাছে ক্ষমা চায় তাহলেই সে কাজে নামবে।

বাধ্য হয়ে এবার সৃজন এর কাছে যায় কৃষ্ণা। সৃজনকে কৃষ্ণা বোঝানোর চেষ্টা করে যে বড় বড় ব্যবসায় এমন ছোটখাটো পলিটিক্স করতে হয়। কিন্তু সৃজন কোনভাবেই রাজি হয় না পর্ণার ক্ষমা চাওয়ার জন্য। তখন কৃষ্ণা ঘরে গিয়ে দরজা দিয়ে দেয় আর বলে যতক্ষণ না সৃজন ক্ষমা চাইছে ততক্ষণ পর্যন্ত সে দরজা খুলবে না। এবার খুব ভয় পেয়ে যায় সৃজন। তাহলে শেষ পর্যন্ত নিজের স্বার্থেই এবার নিজের ছেলে বৌমার মাঝে মিল করাতে উঠে পড়ে লাগলো কৃষ্ণা।a

Back to top button