বাঘের মুখ থেকে শিকার ছিনিয়ে নিল জ্যাস! আবার সিংহাসনে বসলো কৌশিকী, তীরে এসে তরী ডুবলো উৎসব, মেহেন্দি, বৈদেহির!

একজন নিষ্ঠাবান পুলিশ অফিসার এবং এক সৎ সাংবাদিকের যৌথ মোকাবিলায় শাস্তি পেতে চলেছে কিছু দাগি ক্রিমিনাল।ধারাবাহিকের এই আকর্ষণীয় গল্প রোজ রোজ মুগ্ধ করছে জি বাংলার (Zee Bangla) জগদ্ধাত্রী (Jagaddhatri) ধারাবাহিকের দর্শকদের। দর্শকদের প্রিয় হয়ে ওঠায় মেগার টিআরপিও তুঙ্গে।

বর্তমানে গল্প অনুযায়ী, উৎসবের সমস্ত কারসাজি ধরে ফেলছে জগদ্ধাত্রী আর স্বয়ম্ভু। বহুদিন ধরে একের পর এক গুরুতর অন্যায় করে চলেছে সে। এইবার সেই সব কিছুর শাস্তি ভোগ করার পালা। পাপের ফল তো মানুষকে একদিন না একদিন ভোগ করতেই হয়। উৎসব আর দেবুর জন্য এইবার সেই দিনটা এসে উপস্থিত হয়েছে।

কাঁকনকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা, কৌশিকী মুখার্জীকে খুন করার চেষ্টা করা, জগদ্ধাত্রীকে অপহরণ করা এবং এই সব কিছুর দেয় নিজের বাবা রাজনাথ এর ওপর চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা ইত্যাদি এমন আরো সব বিষয়ের জন্য এইবার এক কঠিন শাস্তি হওয়া প্রয়োজন উৎসবের। আর এইবার সেটাই দিতে চলেছে স্বয়ং জগদ্ধাত্রী।

সম্প্রতি জগদ্ধাত্রী ধারাবাহিকের একটি নতুন প্রোমো ভিডিও সম্প্রচারিত হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, বৈদেহি মুখার্জী ভীষণ খুশি। কারণ সেই দিনটা চলে এসেছে যেই দিন এই গোটা রাজত্ব নিজের ছেলে উৎসব এবং বৌমা মেহেন্দির নামে করে দিতে চলেছে সে। সেখানে আর কোন জায়গা থাকবে না কৌশিকীর। কিন্তু সবকিছু কি এত সহজে পাওয়া সম্ভব?

এরপর দেখা যায়, দুজনকে চেয়ারে যখনই বসাতে যায় বৈদেহি ঠিক তখনই সেখানে এসে উপস্থিত হয় জগদ্ধাত্রী স্বয়ম্ভু এবং কৌশিকী মুখার্জী। জগদ্ধাত্রী বলে, একমাত্র রানীকেই তার সিংহাসনে মানায় কোন কলতলা কালচার মেয়েকে নয়। তাদের জীবিত দেখে অবাক হয়ে যায় প্রত্যেকে। এক নিমিষে সবার মুখের হাসি উড়ে যায়। এরপর উৎসবের মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে জগদ্ধাত্রী বলে, তাকে গ্রেফতার করা হচ্ছে।

Back to top button