দিব্যার সব খেলা শেষ করে নুড়ির আসল মুখোশ খুলে দিল জ্যাস! আজকের পর্বে রয়েছে দারুন টুইস্ট

নুড়ির রেজিস্ট্রি সার্টিফিকেটে দিব্যার সই! এইবার নুড়ি আর দিব্যার খেলা শেষ করল জগদ্ধাত্রী

ছোট পর্দার ধারাবিহকগুলি অনেক ক্ষেত্রেই দর্শকদের রোজকার জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে যায়। টেলিভিশনের চরিত্রগুলি হয়ে ওঠেন তাদের বাড়ি কিংবা একেবারে পাশের বাড়ির সদস্য। সেরকমই বলা যায়, বাঙালির ড্রয়িং রুম থেকে ডাইনিং রুমের চর্চায়ও ঢুকতে পেরেছে ‘জগদ্ধাত্রী’ (Jagaddhatri)

ইতিমধ্যেই আকর্ষণীয় প্লট, রহস্য উদঘাটন, অ্যাকশন এবং অসাধারণ অভিনয় দিয়ে দর্শকদের মনের একেবারে কাছে পৌঁছেছে জগদ্ধাত্রী ওরফে অঙ্কিতা মল্লিক (Ankita Mallick) এবং স্বয়ম্ভু অর্থাৎ সৌম্যদীপ মুখোপাধ্যায় (Soumyadeep Mukherjee)। টিআরপিতেও (TRP) এই ধারাবাহিকটির স্থান বেশ ঈর্ষণীয়।

এদিনের পর্বে দেখা যায় জগদ্ধাত্রী জেরা করছে নুড়িকে। তার সামনে একটা একটা করে তার জীবনের সত্যি ঘটনা তুলে ধরছে জগদ্ধাত্রী। এমন সময় সাধুদার ফোনে একটি ফোন আসে আর তারপর সাধুদা জগদ্ধাত্রীকে বলে তার কাছে আর বেশি সময় নেই। কারণ জগদ্ধাত্রী নামে বেশ অনেকগুলি কমপ্লেইন এসেছে। তার হাতে সময় আছে মাত্র চার ঘন্টা।

এরপর দেখা যায় তার মাঝেই লাঞ্চ ব্রেকে একসাথে খেতে বসেছে জগদ্ধাত্রী আর স্বয়ম্ভু। তারা দুজনেই মনে মনে বলে যদি খোলাখুলি কথা না বলা হয় তাহলে হয়তো সম্পর্কটা সত্যিই শেষ হয়ে যাবে। অন্যদিকে বৈদেহি কৌশিকী মুখার্জিকে বলে, যদি রাজনাথ তার বড় ছেলের সাথে আইনি সম্পর্ক স্থাপন করে আর যদি জগদ্ধাত্রী চেয়ারে বসে তাহলে খুব খারাপ হয়ে যাবে।

এর মধ্যেই থানায় এসে হাজির হয়েছে দিব্যা সেন। দিব্যা আর নুড়ি একে অপরকে সামনাসামনি দেখে বেশ খানিকটা ভয় পেয়ে যায়। তাদের সেই ভয়টাকে সত্যি করতে এবার এন্ট্রি নেয় জগদ্ধাত্রী। তারা কি একে অপরকে চেনে এই কথা জিজ্ঞাসা করাই দুজনেই অসম্মতি জানায়। তখন জগদ্ধাত্রী বলে নুড়ি নায়েকের রেজিস্ট্রি সার্টিফিকেটে যে সাক্ষীদের নাম রয়েছে তার মধ্যে একটা সই দিব্যা সেনের। জগদ্ধাত্রী সবটা জেনে গেছে এই দেখে ভয় পেয়ে যায় তারা দুজনেই। এইবার একেবারে মোক্ষম চাল দিয়েছে জগদ্ধাত্রী।

Back to top button