রূপের জন্য এবার আ’ত্ম’হ’ত্যার পথ বেছে নিল গিনি! রইল আজকের দুর্ধর্ষ পর্ব

এই বিয়ে না হলে আ'ত্ম'হ'ত্যা করবে গিনি! জমজমাট ইচ্ছে পুতুলের আগামী পর্ব

বর্তমানে জি বাংলা (Zee Bangla) চ্যানেলের জমে উঠেছে ইচ্ছে পুতুল (Ichhe Putul)। নিজের মুখে সমস্ত দোষ স্বীকার করেছে ময়ূরী। নিজের গা থেকে সমস্ত কলঙ্ক ঝেড়ে মুছে ফেলতে সক্ষম হয়েছে মেঘ। নীলকেও সে বুঝিয়ে দিতে পেরেছে যে এতদিন ধরে কত বড় অন্যায় সে করেছে মেঘের সাথে।

ধারাবাহিকের আগামী পর্ব দেখলে অবাক হবেন দর্শক মহল। রূপের জন্য পাগল হয়ে গিয়েছে গিনি। বাড়ির প্রত্যেকটা মানুষ তাকে বোঝানোর চেষ্টা করলেও বিয়ে সে রূপকেই করবে। গিনিকে সামলানোর ক্ষমতা বাড়ির কারর নেই। কারোর কোনো কথাই শুনতে চাইছে না সে। সে রূপের জালে এমন ভাবে জড়িয়ে গিয়েছে যে তাকে মুক্ত করা কারো সাধ্য নেই।

ধারাবাহিকের আগামী পর্বে দেখা যাবে ময়ূরীর সাথে সামনাসামনি কথা বলতে হসপিটালে পৌঁছে যায় মীনাক্ষী অর্থাৎ নীলের মা। সে যখন ময়ূরীর বাবাকে বলে যে সে ময়ূরীর সাথে কথা বলতে চায় তখন ময়ূরীর বাবা অনিন্দ্য তাতে অসম্মতি প্রকাশ করেন। তিনি সোজা ভাষায় মীনাক্ষীকে জানিয়ে দেন যে, “ময়ূরীর সঙ্গে কথা বলতে আমি কাউকে এলাও করব না।”

অন্যদিকে আশীর্বাদ হচ্ছে না এই বিষয়টা কিছুতেই মেনে নিতে পারে না গিনি। তার মনে হতে থাকে যে এই সমস্ত কিছু মেঘের প্ল্যান। মেঘ ইচ্ছে করে নিজের রাগ মেটাতে এই সবকিছু ঘটাচ্ছে। নিজের দাদার কথা এক বর্ণ বিশ্বাস করে না সে। সে সোজাসুজি জানিয়ে দেয় যে রূপকে সে বিয়ে করবেই।

সবাইকে রাজি করানোর জন্য গিনি হাতে ছুরি তুলে নেয় আর নিজের হাত কাটতে যায়। তখনই তাকে বাধা দেয় নীল। তখন গিনি তার দাদাভাইকে দূরে সরিয়ে দিয়ে বলে, “একদম আমার কাছে আসার চেষ্টা করবি না, রূপের সাথে আমার আশীর্বাদ হওয়ার কথা ছিল আজকে, আর আজকেই সেই আশীর্বাদ হবে, যদি না হয় তাহলে আমি নিজেকে শেষ করে ফেলব।” গিনির এমন কথা শুনে ভয় পেয়ে যায় বাড়ির প্রত্যেকে। তবে কি গিনির যেদের কাছেই হার মানবে সবাই?

Back to top button