ময়ূরীর আসল রূপ জেনেও নীল আবার মেঘকে অবিশ্বাস করলো, উল্টোদিকে ময়ূরী আবার মিথ্যে বলল সবার সামনে, ফাঁস আসন্ন পর্ব

কয়েক মাস হল জি বাংলায় (Zee Bangla) শুরু হয়েছে ‘ইচ্ছে পুতুল’ (Icche Putul)। দুই বোনের গল্প নিয়েই তৈরি জি বাংলার এই সিরিয়াল। দিদি ময়ূরী নিজের অসুস্থতার জন্য বোন মেঘের উপরে নির্ভরশীল। অথচ মনে মনে বোনের প্রতি হিংসায় মন ভরপুর তার। সৌরনীল তাকে ছেড়ে মেঘকে ভালবেসে বিয়ে করেছে বলে প্রতিনিয়ত ষড়যন্ত্র করে চলেছে ময়ূরী। মেঘকে অপদস্থ করা, তার ক্ষতি করে সবার থেকে দূরে সরিয়ে দেওয়াই তার লক্ষ্য।

ময়ূরী আবার চেষ্টা করছে মেঘকে বদনাম করতে

এই ধারাবাহিকের বর্তমান গল্প সৌরনীলের বোন গিনিকে কেন্দ্র করে। সে রূপ নামক একটি খারাপ ছেলের পাল্লায় পড়েছে যাকে মেঘ খুব ভালো মতোই চেনে। মেঘ অনেক ভাবেই তাকে সাবধান করতে যায় কিন্তু সে অর্থাৎ গিনির সহ বাড়ির প্রত্যেকে এমন কি নীল অব্দি মেঘকে কোন না কোন কারণে ভুল বোঝে। এই বিষয়টিকে একমাত্র ভালোভাবে জানত ময়ূরী কারণ সে সবটা সামনে থেকে দেখেছে।

কিন্তু ময়ূরীও গিনিকে ভুল বোঝায়। ময়ূরী বলে রুপঙ্করের প্রতি মেঘের ভালোলাগা ছিল কিন্তু রূপঙ্কর কখনোই মেঘকে পাত্তা দেয়নি তাই সেই প্রতিহিংসা থেকেই মেঘ এসব করছে। ময়ূরের কথা শোনার পর বাড়ির সকলে ভীষণভাবে ভুল বোঝে মেঘকে। মেঘের শাশুড়ি ময়ূরীকে বাড়িতে ডেকে পাঠায় সমস্ত বিষয়টা সামনে থেকে আলোচনা করার জন্য। ময়ূরী এসেই মেঘের শাশুড়ি এবং গিনির মাকে মেঘের ব্যাপারে নোংরা নোংরা মিথ্যা কথা বলতে থাকে। তাদের এটাই সবাব, আর তারা সেটাই করছে তাই এই নিয়ে অতটাও খারাপ লাগেনি দর্শকদের যতটা লেগেছে নীলের ব্যবহারে।

বার বার মেঘকে বিশ্বাস করে ঠকেও শিক্ষা নেই নীলের

এর আগেই ময়ূরীর মিথ্যা জন্য ভুগতে হয়েছে নীল এবং মেঘকে। এমন একটা সময় গিয়েছে যখন মেঘ সম্পূর্ণ একা মাথা উঁচু করে সবার একাধিক নোংরা মন্তব্য সহ্য করেও লড়াই করে গিয়েছে। এবং প্রমাণ করে দিয়েছে যে সে কোন দোষ করেনি। আর দোষটা কে করেছে সেটাও সবাইকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে। কিন্তু তারপরেও নীলের এতটুকুনিও পরিবর্তন লক্ষ্য করতে পারছে না দর্শকরা।

মেঘ বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছিল বলে, নীলের এত ক্ষমা চাওয়া, মানানো, বোঝানো সবটাই সে বৃথা করে দিল এদিনের পর্বে। ময়ূরী যে সর্বদা মেঘের নামে মিথ্যা কথা বলে এসছে তার দুটো মন্তব্য শুনেই আবার মেঘকে অবিশ্বাস করছে নীল। শুধু যে অবিশ্বাস করছে তাই নয় সেই অবিশ্বাসটাকে খুব বাজে ভাবে মেঘের সামনে প্রকাশ করছে সে। মুখে স্পষ্ট ভাবে না বললেও মেঘ এবং রূপকে নিয়ে একাধিক কথাবার্তা ইতিমধ্যেই ভেবে ফেলেছে নীল। এত কাণ্ড করে এত জিনিস দেখেও একটুও বদলায় নি সে আর এটা দেখেই নীলের প্রতি বেশ হতাশ হয়েছে দর্শকরা। একজন স্বামী তথা ধারাবাহিকের নায়ক হিসেবে নীলের কর্তব্য সর্বদা মেঘের পাশে থাকা। আর কেউ বুঝুক বা না বুঝুক সর্বদা মেঘকে বোঝা কিন্তু নীলের মধ্যে সেসবের বিন্দুমাত্র লক্ষণ নেই।

Back to top button