তীব্র গরমে ভারী লাঙল ঘাড়ে নিয়ে মাঠে শুটিং, বাইরের পরিবেশে প্রতিদিনের ‘সন্ধতারা’র অভিনয়! অন্বেষার কঠিন পরিশ্রম বিফলে যাবে না বলছে দর্শক

বাংলা টেলিভিশনের অন্যতম পরিচিত ও জনপ্রিয় মুখ হয়ে উঠেছেন অন্বেশা হাজরা। ২০১৭- এ কালার্স বাংলাতে কাজললতা ধারাবাহিকে ডেবিউ করেন। এরপর আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি। এরপর চুনি পান্না সিরিয়ালে চুনির চরিত্রে কাজের সুযোগ পান। তবে ২০২১- এ অন্বেশার এই পথ যদি না শেষ হয় তাঁকে রাতারাতি স্টার বানিয়ে দিয়েছে। অল্প দিনের মধ্যেই দর্শকের ঘরের মেয়ে হয়ে উঠেছিলেন ধারাবাহিকের ঊর্মি সরকার। ২০২২- এ এই পথ যদি না শেষ হয় ধারাবাহিকের পথ চলা শেষ হয়। অন্বেশার ভক্তদের মনটা বেশ খারাপ ছিল। তবে সন্ধ্যার ভূমিকায় ছোট পর্দায় ফিরতেই দিল খুশ অভিনেত্রীর ভক্তদের। ১২ জুন সোমবার থেকে শুরু হয়েছে নতুন ধারাবাহিক সন্ধ্যাতারা।

সন্ধ্যা তারা ধারাবাহিকে তার চরিত্রটি ভীষণ পরিশ্রমের। এই গরমে কাঠফাটা রোদে মাঠের মধ্যে নেমে লাঙ্গল দিয়ে চাষ করার যে সিন গুলি দর্শকদের দেখানো হয়েছে সেখানে অভিনেত্রীকে ঠিক কতটা কষ্ট করতে হয়েছে তা বুঝতে পেরেছেন দর্শকরা। এমন অবস্থায় অসুস্থ হয়ে যাওয়ার একটি সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু এই সমস্ত কিছুকে পিছনে ফেলে অনেক আগে এগিয়ে গিয়েছেন অভিনেত্রী।

তিনি যে জায়গায় পৌঁছতে চান সেখানে এই কষ্টগুলো তার কাছে জলভাত। তাই অত্যন্ত দক্ষতার সাথে এবং পরিশ্রম করে দর্শকদের মন জেতার চেষ্টায় মেতেছেন তিনি। যাদের মতে অভিনয় করা খুব সহজ তাদেরকে উপযুক্ত জবাব দিচ্ছেন অভিনেত্রী। তার সাজ পোশাক থেকে শুরু করে কথাবার্তার ধাঁচ আজ এবং কাজকর্ম সব মিলিয়ে দর্শকদের মনে একটা স্থায়ী জায়গা তৈরি করে নিচ্ছেন অন্বেষা।

এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, “একেবারে নতুনভাবে নতুন চরিত্র নিয়ে ফিরেছি। এটা একটা বড় চ্যালেঞ্জ। আসলে ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানোটাই তো একটা চ্যালেঞ্জ। আমি পরিশ্রমী। চ্যালেঞ্জ নিতে ভালোবাসি। ভয় পেয়ে পিছিয়ে আসার কোনও মানে নেই। তবে আমার মনে হয় আমার থেকেও অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং ছিল যাঁরা এই প্রজেক্টের গল্প লিখেছেন বা পরিচালনা করেছেন আর আমাকে কাস্ট কারনোর কথা ভেবেছেন।”

তবে তাকে নিয়ে বেশ চিন্তায় পড়েছেন দর্শকরা। এই গরমে এত পরিশ্রম করা যদি তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন তখন কি হবে? এই আবহাওয়ায় এমন সিন করার কি কোন প্রয়োজন ছিল? ধারাবাহিক নির্মাতাদের কাছে প্রশ্ন দর্শকদের। প্রিয় অভিনেত্রীকে নিয়ে চিন্তার শেষ নেই ভক্তদের। তবে অভিনেত্রীর মতে তার ভক্তরা তাকে নিয়ে ভাবছেন আর এটাই তার কাছে অনেক বড় পাওয়া।

Back to top button